নিউজিল্যান্ডে চাঙ্গা আছেন টাইগাররা: বাশার

সিরিজ শুরুর অনেকটা আগে নিউজিল্যান্ডে চলে আসায়, কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে সুবিধা হচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। এমনটাই মনে করেন দলের সঙ্গে থাকা বিসিবির নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন।

কিউই ক্রিকেট বোর্ডের দেয়া অনুশীলন সুবিধা নিয়েও বেশ সন্তুষ্ট দলের ক্রিকেটাররা। কোয়ারেন্টিনে প্রথম দিকে কিছু সমস্যা থাকলেও, এখন দলের সবাই চাঙ্গা আছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

নিউজিল্যান্ডে যাওয়ার পর থেকেই আলোচনায় কন্ডিশন আর উইকেট। তাসমান সাগরের প্রচণ্ড বাতাসে, এখানে ক্রিকেট খেলা সব দলের জন্যই কিছুটা কষ্টকর। তাই তো, কন্ডিশনিং ক্যাম্প নিয়ে আক্ষেপ থাকে সব সময়ই।

টাইগারদের অবস্থা তো ছিল আরও খারাপ। এক বছরের বিরতির পর উইন্ডিজ সিরিজ শেষ করতে না করতেই, উড়ে যেতে হয়েছে ক্রাইস্টচার্চে। তারপর দল বন্দি ছিল হোটেল রুমে। কিন্তু, অনুশীলনে সুযোগ মিলতেই আবারও ফুরফুরে অবস্থায় চলে এসেছে টাইগাররা।

ওয়েদার আর কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার এই সুযোগটা সবাই কাজে লাগাচ্ছে শতভাগ। তার ওপর অনুশীলনের সুবিধাদি খুবই ভালো হওয়ায় ষোলোআনাই খুশি টিম ম্যানেজমেন্ট।

হাবিবুল বাশার সুমন বলেন, ‘এখানকার ওয়েদারের সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার এ সুযোগটা আমরা খুব ভালোভাবে কাজে লাগাচ্ছি। অনেকদিন আগে অলে আসায় আমাদের বেশ লাভ হয়েছে। মাঠ আর উইকেট ঘুরে দেখলাম। বেশ ভালো।

এখানকার আন্তর্জাতিক ম্যাচেও এরকমই উইকেট থাকবে বলে মনে হচ্ছে। আর ওদের অনুশীলন সুবিধা তো খুব ভালো।’
কোয়ারেন্টিনের নিয়ম এখন বেশ শিথিল। বাধ্যবাধকতা আছে অনেক, কিন্তু সেটাও কষ্টকর নয়। প্রথম দিকে বেশ অসুবিধায় পড়তে হয়েছিলো পুরো দলকে। তবে, সময় যেতেই মানিয়ে নিতে পেরেছে ক্রিকেটাররা।

দেশে বায়ো বাবলে হোটেল বন্দি থাকতে হলেও, এখানে ১৪ দিন পর মুক্ত হাওয়ায় ঘোরা যাবে, জানার পর থেকেই উচ্ছ্বসিত তারা।

হাবিবুল বাশার সুমন আরও বলেন, ‘আমাদের দেশে বায়োবাবলে কোথাও বের হওয়া যায় না। তবে, এখানে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিন করার পর আপনি স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারবেন। এটা জানার পর থেকেই খুশি ক্রিকেটাররা। আগের সব কষ্ট ভুলে, আগামীর সময়ের অপেক্ষায় আছে তারা।’

এরপর ক্রাইস্টচার্চ থেকে কুইন্সটাউন যাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সেখানে অনুশীলন ক্যাম্পের পর প্রথম ম্যাচের ভেন্যু ডানেডিনে যাবে টাইগাররা।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment