আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৪টি পার্টনারশিপ; কোহলি-গেইল- ২০৪ রান

চলতি আইপিএলের ২২ তম ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে ২৩ রানে পরাজিত করে ঘুরে দাঁড়িয়েছে চেন্নাই সুপার কিংস। এদিনও সিএসকের শুরুটা ভালো হয়নি, কিন্তু তৃতীয় উইকেটে রবিন উথাপ্পা (৮৮) ও শিবম দুবের (৯৫*) বিধ্বংসী জুটিতে ১৬৫ রান ওঠে এবং দলকে তারা ২১৬ রানে পৌঁছে দিতে সক্ষম হন।

একইভাবে উথাপ্পা এবং দুবে আইপিএলে তাদের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর করার পাশাপাশি এই জুটিটি ছিল সিএসকে দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জুটি। জবাবে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু ৯ উইকেট হারিয়ে ১৯৩ রান তুলতে সক্ষম হয় এবং সিএসকে দল ২৩ রানে ম্যাচটি জয়লাভ করে। টানা চারটি পরাজয়ের পর এটিই ছিল ২০২২ আইপিএলের প্রথম জয় চেন্নাই সুপার কিংসের। দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের কারণে ম্যাচের সেরা নির্বাচিত হন শিবম দুবে। যাইহোক এই প্রতিবেদনে আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৪টি জুটির সম্পর্কে বলা হয়েছে:

১) বিরাট কোহলি ও এবি ডি ভিলিয়ার্স: ২২৯ রান
২০১৬ সালে গুজরাট লায়ন্সের বিপক্ষে দ্বিতীয় উইকেটে আরসিবির দুজন খেলোয়াড় অর্থাৎ বিরাট কোহলি (১০৯) ও এবি ডি ভিলিয়ার্সের (১২৯*) জুটিতে ২২৯ রান ওঠে। ফলে আরসিবি দল ২৪৮ রান তুলতে সক্ষম হয়। এরপর গুজরাট লায়ন্স মাত্র ১০৪ রানে গুটিয়ে যায়।

২) বিরাট কোহলি ও এবি ডি ভিলিয়ার্স: ২১৫ রান
২০১৫ সালে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে আরসিবির এই দুই ব্যাটসম্যানের জুটিতে ২১৫ রান ওঠে। বিরাট কোহলি ৮২ রান ও এবি ডি ভিলিয়ার্স ১৩৩ রান — দুজনেই অপরাজিত থাকেন। এরপর ২৩৬ রানের লক্ষ নিয়ে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ১৯৬ রান করতে সক্ষম হয়েছিল।

৩) অ্যাডাম গিলক্রিস্ট ও শন মার্শ: ২০৬ রান
২০১১ সালে আরসিবির বিরুদ্ধে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের হয়ে অস্ট্রেলিয়ার দুজন বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান অ্যাডাম গিলক্রিস্ট (১০৬) ও শন মার্শের (৭৯) জুটিতে ২০৬ রান ওঠে। ফলে পাঞ্জাব দল ২৩২ রানের বিশাল স্কোর কার্ড খাড়া করে। জবাবে বেঙ্গালুরু দল মাত্র ১২১ রানে অলআউট হয়।

৪) ক্রিস গেইল ও বিরাট কোহলি: ২০৪ রান
২০১২ সালে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর অধিনায়ক বিরাট কোহলি (৭৩) ও বিধ্বংসী ওপেনার ক্রিস গেইলের (১২৮) জুটিতে ২০৪ রান ওঠে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের বিরুদ্ধে। ফলে বেঙ্গালুরু দল ১ উইকেট হারিয়ে ২১৫ রান তোলে। জবাবে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস ১৯৪ রান করতে সক্ষম হয়েছিল।

x

You May Also Like