ডমিঙ্গো-ডোনাল্ডদের কথা শুনেননি মমিনুল; কাদের চাপে এই সিদ্ধান্ত? বোমা ফাটালেন পাপন

Untitled design 2022 04 06T205548.765

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচ, কোচিং স্টাফের মোটামুটি সবাই আফ্রিকান, তাহলে টস কিংবা যেকোন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তে কোচদের কথা মেনে চলাটাই স্বাভাবিক। কিন্তু আসলে ঘটেছে তার উল্টো। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কথায় সেটা স্পষ্ট।

ডারবানে প্রথম টেস্টে বাংলাদেশের টসে জিতে বোলিং নেওয়ার সিদ্ধান্তে অবাক হয়েছিলেন অনেকেই। স্বয়ং প্রোটিয়া অধিনায়কও বিস্ময় প্রকাশ করেন। অধিনায়ক মমিনুলও না কি জানতেন মাঠে পরে গিয়ে ব্যাটিং করা কঠিন হবে। তারপরও কেন এমন সিদ্ধান্ত? রাসেল ডমিঙ্গো, অ্যালান ডোনাল্ডরা বলে দিয়েছিলেন, আগে ব্যাটিং করতে।

বিসিবি সভাপতি বলছেন কিন্তু বাংলাদেশের কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটার আগের ব্যাটিং করতে চাননি। তাদের পরামর্শেই অধিনায়ক মুমিনুলকে বোলিং নিতে হয়েছে।

বাংলাদেশ দলে এখন সিনিয়র ক্রিকেটার বলতে রয়েছেন মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল। তামিম পেটের পীড়ার কারণে ম্যাচই খেলতে পারেননি। নতুন বলে মুশফিকের ভীতি নতুন নয়। অধিনায়ক হিসেবেও মুশফিক ছিলেন রক্ষণাত্মক।

ক্রিকবাজের সঙ্গে আলাপে ডারবান টেস্টের পারফরম্যান্স নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেছেন বিসিবি সভাপতি। টস জিতে কেন বোলিং? জানতে চাইলে পাপন বলেছেন, ‘সামনাসামনি না বসে বলা কঠিন। আমি জানি ডমিঙ্গো ও ডোনাল্ড দুজনই উইকেট সম্পর্কে ধারণা দিয়েছে এবং সাজেশন দিয়েছে এখানে পরের দিকে ব্যাটিং করা কঠিন হবে। কারণ তখন খুব টার্ন হবে। সেখানে খালেদ মাহমুদ ও জালাল ইউনুস ছিল।’

অগ্রজদের আড়াল করতে নিজে বলির পাঁঠা হয়েছেন অধিনায়ক মুমিনুল। মিডিয়ায় নিজের ওপর দায় নিয়েছেন। পাপন বলেন, ‘অবশ্যই দক্ষিণ আফ্রিকার কোচিং স্টাফরা তাদের কন্ডিশন ভালো জানে। আমি শুনলাম মুমিনুল বলেছে, এটা তার নিজের সিদ্ধান্ত (আগে বোলিং)। আমি জানি কিছু সিনিয়র ব্যাটসম্যান বলেছিল তার আগে ব্যাটিং করতে চায় না। এটাই ছিল মূল বিষয়।’

‘মুমিনুল হয়তো সিনিয়রদের কথা শুনেছে, কারণ তাকে তো দলটা নিয়ে খেলতে হবে। আমি কি করতে পারি? আমার কিছু বলার নেই। তামিম শেষ মুহূর্তে ছিটকে গেছে। কিন্তু তারপরও তারা সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করতে পারতো।’ বলেন পাপন।

কোচদের কথা না মানার এই প্রবণতাকে ভালো চোখে দেখছেন না বিসিবি সভাপতি। তিনি বলেছেন, ‘অবশ্যই তাদের মাটিতে তাদের কথা (দক্ষিণ আফ্রিকার কোচ) না শোনা বাজে দেখায়। কোচদের কথাকে গুরুত্ব না দেওয়ার এই অবস্থান থেকে যদি আমরা না বের হতে পারি, তাহলে ভবিষ্যতে আমাদের অনেক সমস্যায় পড়তে হবে।’

You May Also Like