পাঞ্জাবকে শিশির নিয়ে চিন্তা করার সুযোগ দিলেন না রাসেল

Untitled design 2022 04 02T013447.108

টসে জিতে কলকাতা অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার মুম্বাইয়ের শিশিরের প্রভাবের কথা উল্লেখ করে মজা করে বলেছিলেন, সুইমিং পুল দেখেছেন বলে পরে ব্যাটিং করবেন তাঁরা। অবশ্য পরে ব্যাটিং করতে নেমে কলকাতার অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল যা করলেন, তাতে শিশিরের কোনো প্রভাব টের পাওয়া গেল না। ৩১ বলের ইনিংসে ৮টি ছয়, ২২৫.৮০ স্ট্রাইক রেটে অপরাজিত ৭০ রানের ওই ঝড়ে পাঞ্জাব কিংস যেন ওয়াংখেড়ে থেকে উড়ে গিয়ে আরব সাগরে।

অথচ ১৩৮ রানের লক্ষ্যে ৫১ রানে ৪ উইকেট হারিয়েছিল কলকাতা। ম্যাচে যা রোমাঞ্চের আভাস মিলেছিল, রাসেল-ঝড়ে মিলিয়ে গেছে সেসব। কলকাতা তৃতীয় ম্যাচে নিজেদের দ্বিতীয় জয় পেয়েছে ৬ উইকেট ও ৩৩ বল বাকি থাকতে। অন্যদিকে পাঞ্জাব প্রথম ম্যাচ জেতার পর হারল দ্বিতীয়টি।

রান তাড়ায় দ্বিতীয় ওভারে অজিঙ্কা রাহানেকে ফিরিয়েছিলেন কাগিসো রাবাদা। একদিকে শ্রেয়াস আইয়ার ১৫ বলে ২৬ রান করলেও ভেঙ্কটেশ আইয়ার করেছেন ৭ বলে ৩ রান, ওডিন স্মিথের বলে ক্যাচ তোলার আগে। অধিনায়ক শ্রেয়াসকে ফিরিয়েছেন রাহুল চাহার। এরপর নীতিশ রানাকেও দ্রুত হারালে একটু চাপেই পড়ে কলকাতা।

নামার পর রাসেল প্রথম ৭ বলে করেন মাত্র ২ রান। কলকাতার ইনিংসের সপ্তম, অষ্টম ও নবম ওভার থেকে মাত্র ৫ রান এসেছে। কিন্তু ম্যাচের ছবিটা পাল্টাতে থাকে দশম ওভার থেকে। হারপ্রিত ব্রারকে দুই ছয় মেরে বিশেষ কিছুর আগমনী বার্তা দেন রাসেল। পরের ওভারে চাহার এসে রাসেলকে চুপচাপ রাখতে পেরেছিলেন, কিন্তু ১২তম ওভারে ওডিন স্মিথের কাছ থেকে রাসেল ও স্যাম বিলিংস মিলে তোলেন ৩০ রান। সে ওভার শেষেও ২১ বলে ৪০ রান ছিল আন্দ্রে রাসেলের। সেই রাসেল পরের ১০ বলে করলেন আরও ৩০ রান। সেই ওভারেই ২৬ বলে অর্ধশত ছুঁয়ে শেষ ২৪ বলেই ৬৮ রান করেছেন ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার। জয় নিশ্চিত হওয়ার সময় স্যাম বিলিংস অপরাজিত ছিলেন ২৩ বলে ২৪ রান করে।

এর আগে পাঞ্জাব গুটিয়ে গেছে মূলত নাটকীয় এক ধসে। ৫.৪ ওভারে ৬২ রানে ২ উইকেট ছিল, সেই তারাই ১৮.২ ওভারেই থামে ১৩৭ রান তুলতেই। পাঞ্জাবের মূল ক্ষতিটা করেন উমেশ যাদব। এবারের আইপিএলের শুরু থেকেই নতুন বলে ধারাবাহিক উমেশ আজ ২৩ রানে ৪ উইকেট শিকার করেন।

প্রথম ওভারে মায়াঙ্ক আগারওয়ালকে হারালেও পাঞ্জাবকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন শিখর ধাওয়ান ও ভানুকা রাজাপক্ষে। পরের জন তো ঝড় তুলেছিলেন, ৯ বলে তিনটি করে চার ও ছয়ে করেন ৩১ রান। শিবাম মাভির বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরতে হয় তাঁকে।

পাওয়ারপ্লের শেষ ওভারে ধাওয়ানকে ফেরান টিম সাউদি। পাঞ্জাবের ধস নামে মূলত নবম ওভারে ১৬ বলে ১৯ রান করে লিয়াম লিভিংস্টোন ফেরার পর। ২৪ রানের ব্যবধানে তারা হারায় ৫ উইকেট। দশম ব্যাটসম্যান কাগিসো রাবাদার ১৬ বলে ২৫ রানের ইনিংসে তবু মোটামুটি একটা সংগ্রহ পায় তারা তাতে। যাদবের দারুণ বোলিংয়ের দিনে ২টি উইকেট নেন সাউদি, ১টি করে নেন মাভি, সুনীল নারাইন ও রাসেল। উইকেটশূন্য থাকলেও রহস্য স্পিনার বরুণ চক্রবর্তী ৪ ওভারে দেন মাত্র ১৪ রান।

You May Also Like