কাতার বিশ্বকাপ থেকে বাদ হওয়ার পরেও ইতালি বিশ্বকাপে!

20220401 153423

কাতার বিশ্বকাপে ইতালির খেলা হচ্ছে না এটা সবারই জানাকথা। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের প্লে-অফের সেমিফাইনালে উত্তর মেসিডোনিয়ার কাছে শেষ মুহূর্তের গোলে হেরে টানা দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের মূল পর্বে উঠতে ব্যর্থ হয় বর্তমান ইউরো চ্যাম্পিয়নরা। বিশ্বমঞ্চে ইতালি না থাকায় দেশটির সমর্থকদের পাশাপাশি নিজের হতাশা লুকাতে পারেননি ফিফা সভাপতি ও ইতালির নাগরিক জিয়ান্নি ইনফান্তিনোও। ইতালির বাদপড়ার পর কান্না পেয়েছিল তার।

এদিকে ইতালির বিশ্বকাপ স্বপ্নভঙ্গের মধ্যেই পাওয়া গেল নতুন এক খবর। ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যম লা স্তাম্পার তথ্য অনুযায়ী, কাতার বিশ্বকাপে খেলার স্বপ্ন এখনো শেষ হয়ে যায়নি দোন্নারুম্মাদের। তবে সে ক্ষেত্রে আছে এক জটিল সমীকরণ।

আন্তর্জাতিক ম্যাচে স্টেডিয়ামে নারী দর্শকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ায় কাতার বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার শঙ্কায় ইরান। ফিফা যদি তাদের বিশ্বকাপ থেকে বেরই করে দেয়, তাহলেই কেবল সুযোগ মিলতে পারে ইতালির। ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যম লা স্তাম্পার বরাত দিয়ে জনপ্রিয় ক্রীড়াভিত্তিক সংবাদমাধ্যম স্পোর্টস বাইবেল এমনটাই জানিয়েছে।

২০১৯ সালে নিষেধাজ্ঞা তুলে দেওয়ার পর সম্প্রতি ফুটবল মাঠে বসে নারী দর্শকদের খেলা দেখায় আবারও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ইরান। জানা গেছে, কাতার বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলা নিশ্চিত হওয়ার পরই এমন নিষেধাজ্ঞা দেয় ইরান। আর তাই তাদের ব্যাপারে কঠোর হতে পারে ফুটবলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারকরা।

যদি এমন কিছু হয় তবে কাতারের দরজা খুলে যাবে ইতালির। কেননা ইরানের স্থলাভিষিক্ত দলের তালিকায় সবার ওপরে আছে ফিফা র‍্যাংকিংয়ের ছয়ে থাকা ইতালি।

যদিও এতসব দাবি ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যমগুলোর। খেলাধুলা ভিত্তিক আন্তর্জাতিক প্রধান গণমাধ্যমগুলোতে এ ব্যাপারে তেমন কোনো প্রতিবেদন পাওয়া যায়নি।

১৯৭৯ সালে ইসলামী প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠার পর থেকে ইরানে ফুটবল ও অন্য খেলায় স্টেডিয়ামে নারীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে ফিফা ইরানকে স্টেডিয়ামে দর্শক প্রবেশের নির্দেশ দেয়। গত জানুয়ারিতে তিন বছরে প্রথমবার আন্তর্জাতিক ম্যাচে নারী দর্শকদের প্রবেশ করতে দেওয়া হয়। কিন্তু গত মঙ্গলবার রাতে লেবাননের বিপক্ষে ইরানের ম্যাচে ফের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

You May Also Like