মাত্র পাওয়াঃ টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের সেরা ব্যাটসম্যানের নাম ঘোষণা!

kayes sabbir miraj

স্ট্রাইক রেট নিয়ে সমালোচনা হলেও গত বছর ওপেনারদের ব্যর্থতার মাঝে খানিকটা আলো জ্বালিয়েছিলেন নাইম শেখ। ২০২১ সালে লিটন দাস-সৌম্য সরকাররা যখন নিজেদের মেলে ধরতে ব্যর্থ তখন পুরো বছরে ২৬ টি-টোয়েন্টি খেলে ৫৭৫ রান করেছিলেন বাঁহাতি এই ওপেনার।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

বাংলাদেশের ব্যাটারদের মাঝে যা সর্বোচ্চ। গত বছর আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে বেশি রান তোলা ব্যাটারদের তালিকায় ছয়ে ছিলেন নাইম। যদিও সদ্য সমাপ্ত বিপিএলে দলের চাহিদা মেটাতে পারেননি তিনি। পুরো বিপিএলে ৮ ম্যাচ খেলা বাঁহাতি এই ওপেনার করেছিলেন মোটে ৫০ রান। এমন পারফরম্যান্সের পরও আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দলে ছিলেন নাইম।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

সিরিজ শুরুর আগের দিন নাইমকে নিয়ে নিজের আস্থার কথাও জানিয়েছিলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে প্রত্যাশা পূরণে পুরোপুরি ব্যর্থ নাইম। প্রথম ম্যাচে মাত্র ২ রানে ফেরার পর দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে আউট হয়েছেন ১৩ রানে। মাহমুদউল্লাহর মতো নাইমের ওপর থেকে আস্থা হারাচ্ছেন না রাসেল ডমিঙ্গো। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ব্যাট হাতে ব্যর্থ হলেও বাংলাদেশের প্রধান কোচ মনে করেন,

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

টি-টোয়েন্টিতে নাইম বাংলাদেশের সেরা ব্যাটার। এদিকে লিটন দাসের উদাহরণও টেনেছেন তিনি। ম্যাচ শেষে ডমিঙ্গো বলেন, ‘পাঁচ ম্যাচ আগে সবাই বলেছিল লিটনকে বাদ দেয়া উচিত। এখন সবাই বলছে লিটন বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়। অনেক সময় ক্রিকেটারদের খারাপ সময় যায়। কোচ এবং নির্বাচকদের উচিত তাদেরকে সাপোর্ট করা।’ ‘কোচিং এবং দল গঠনের এটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। আজকে খেলার জন্য নাইম যোগ্য ব্যক্তি ছিল।

টি-টোয়েন্টিতে সে আমাদের সেরা ব্যাটার। মিডিয়া যদি না জানে যে সে জায়গাটা প্রাপ্য।’

You May Also Like