কেন প্রধানমন্ত্রী পাঁচবার ফোন করলেন!

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্রীড়াপ্রেমী। ক্রিকেটের প্রতি টানটা হয়তো অন্য খেলার চেয়ে একটু বেশিই। আইসিসি ট্রফির সময় থেকেই বাংলাদেশের বিভিন্ন সাফল্যে তাঁকে পাশে পেয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। খেলোয়াড়দের সঙ্গেও তাঁর হৃদ্যতার সম্পর্ক। অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের বাসায় নিজ হাতে রান্না করা খাবার পাঠিয়েছেন একবার।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

একসময় দেশের মাটিতে সিরিজ হলেই প্রধানমন্ত্রীকে ভিআইপি বক্সে দেখা যেত। করোনাকালে সে দৃশ্যের দেখা আর মেলে না। কিন্তু ঠিকই বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ম্যাচের সময় তাঁর চোখ থাকে টিভির পর্দায়। সাধারণ দর্শকের মতোই খেলার মুহূর্ত তাঁকে আনন্দ দেয়, দলের বিপদ তাঁকে ভাবায়, ক্রিকেটারদের দারুণ কোনো কীর্তি তাঁকে উল্লসিত করে। আফগানিস্তান সিরিজ বেশ মনোযোগ দিয়েই দেখছেন প্রধানমন্ত্রী। বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান বলেছেন, আজ ম্যাচ নিয়ে কথা বলতে তাঁকে পাঁচবার ফোন করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

বোর্ড সভাপতি হিসেবে নাজমুল হাসানকে মাঠে থাকতে হয়। সে সুবাদে দল নিয়ে উচ্ছ্বাস জানাতে চাইলে বিসিবি সভাপতিকে ফোন করে সেটা জানান প্রধানমন্ত্রী। এর আগে ২০১৯ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে দলের মহাবিপদে নেমে তরুণ আফিফ ২৬ বলে ৫২ রানের ম্যাচ জেতানো এক ইনিংস খেলেছিলেন। সে ইনিংস দেখে প্রধানমন্ত্রী বিসিবি সভাপতিকে ফোন করেছিলেন। সভাপতি বলেছিলেন, ‘আফিফের খেলা দেখে তিনি বললেন, ও আগে নামেনি কেন (সেদিন আট নম্বরে ব্যাট করেছেন আফিফ)? ওকে তো আগে দেখিনি।’

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

পরে আফিফের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী কথাও বলেছিলেন সভাপতির মাধ্যমে। চলমান আফগানিস্তান সিরিজেও প্রথম ম্যাচে মহাবিপদে পড়েছিল বাংলাদেশ। এবারও আফিফ ও মিরাজের অসাধারণ জুটি জয় এনে দিয়েছে দলকে। সে জয়ের পরই দলকে অভিনন্দনবার্তা পাঠিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সে তুলনায় আজ বেশ দাপুটে খেলা উপহার দিয়েছে বাংলাদেশ। এ ম্যাচও পুরোটাই দেখেছেন প্রধানমন্ত্রী।

সভাপতি তেমনটাই দাবি করেছেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে পাঁচবার ফোন করেছেন। টিভির সামনে সারাক্ষণ বসে ছিলেন। যখন প্রথম ফোন করেছেন, তখন বলেছেন, খুবই ভালো খেলছে। সেঞ্চুরির (লিটনের) পরও আমাকে ফোন করেছেন। লিটন দাস এবং মুশফিকুর রহিমকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।’

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের ফিল্ডিংয়ের সময়টাতেও বেশ আগ্রহ নিয়ে ম্যাচ দেখেছেন। ম্যাচের মীমাংসা বহু আগেই হয়ে গিয়েছিল, তবে এর মধ্যেও ৪৫তম ওভারে দারুণ এক মুহূর্ত উপহার দিয়েছেন বাংলাদেশের বদলি ফিল্ডার মাহমুদুল হাসান। তাঁর চোখধাঁধানো ক্যাচেই আফগানিস্তানের নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে ফিরে যান আফগানিস্তানের মুজিব উর রেহমান। প্রায় ছক্কা হয়ে যাচ্ছিল মুজিবের শট। সেটা বুদ্ধির সঙ্গে আটকেছেন বদলি ফিল্ডার মাহমুদুল হাসান। তারপর আবার ফিরে এসে ক্যাচ ধরেছেন। সে মুহূর্তও দেখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
নাজমুল হাসান বলেছেন, ‘পরে যখন ফোন করলেন, বলেছেন, কষ্ট করে ক্যাচ ধরল ওর নামটা কী? ওকে তো আমার পুরস্কার দিতে হবে। এত সুন্দর ক্যাচ ধরেছে। মানে তিনি পুরোটা সময় খেলা দেখেছেন। দারুণ উপভোগ করেছেন।’