আইপিএল ২০২২ আসরে আসলো নতুন নিয়ম; চোখ কপালে তোলার মত!

আইপিএলে এবার দল বেড়েছে দুটো। আট দলের আইপিএল থেকে দেখা মিলবে দশ দলের আইপিএলের। দল যেমন বাড়ছে, বাড়ার কথা ম্যাচও। তবে সেটা হচ্ছে না আইপিএলের ফরম্যাট বদলে যাওয়ায়। প্রতিটি দল আগে যেমন গ্রুপ পর্বে খেলত ১৪টি করে ম্যাচ, এবারও খেলবে সেই ১৪টি ম্যাচই। অভিনব ফরম্যাটের ফলেই দেখা মিলবে এই দৃশ্যের।

এবারের আইপিএলের দলগুলোকে ভাগ করা হয়েছে দুটো গ্রুপে। এক একটি গ্রুপে আছে পাঁচটি করে দল। প্রতিটি দল নিজের গ্রুপের চার দলের সঙ্গে দুটো করে ম্যাচ খেলবে। গ্রুপিংয়ের সময় অন্য গ্রুপে নিজেদের সঙ্গে একই রেখায় থাকা দলটির সঙ্গেও দুটো ম্যাচ খেলবে দলগুলো। এক্ষেত্রে মুস্তাফিজের দিল্লি ক্যাপিটালসের সঙ্গে একই রেখায় আছে বি গ্রুপে থাকা পাঞ্জাব কিংস। অন্য গ্রুপের বাকি দলগুলোর সঙ্গে একটি করে ম্যাচ খেলবে দলগুলো। সব মিলিয়ে গ্রুপ পর্বে প্রতিটি দলের খেলার সংখ্যা দাঁড়াবে ১৪-তে।

মুস্তাফিজের দিল্লি আছে ‘এ’ গ্রুপে। দিল্লির গ্রুপের অন্য দলগুলো হলো কলকাতা নাইট রাইডার্স, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স, তার সাবেক দল রাজস্থান রয়্যালস ও লখনউ সুপারজায়ান্টস। আইপিএলের ‘বি’ গ্রুপে আছে চেন্নাই সুপার কিংস, গুজরাট টাইটান্স, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ, পাঞ্জাব কিংস এবং রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। এবারই অবশ্য প্রথম নয়। ২০১১ সালে ছিল দশ দলের আইপিএল। সে বার এই ভাবে খেলা হয়েছিল।

২৬ মার্চ থেকে শুরু হবে এই মৌসুমের আইপিএল। ফাইনাল হবে ২৯ মে। ৭০টি লিগ ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে দলগুলো।

মহারাষ্ট্রের চারটি মাঠে সেই সব ম্যাচ হবে। প্রতিটি দল ওয়াংখেড়ে এবং ডিওয়াই পাতিল স্টেডিয়ামে চারটি করে ম্যাচ খেলবে, ব্র্যাবোর্ন স্টেডিয়াম এবং পুনের এমসিএ স্টেডিয়ামে তিনটি করে ম্যাচ খেলবে।

বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘আইপিএলের ১৫তম আসর হবে জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে। বিমান যাত্রা না থাকায় এ বার করোনা ছড়িয়ে পড়ার ভয়টা কম থাকছে। এর ফলে লিগ পর্বে ক্রিকেটারদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কম বলেই মনে করা হচ্ছে।’

এক নজরে আইপিএলের গ্রুপিং

গ্রুপ ‘এ’ গ্রুপ ‘বি’
মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স চেন্নাই সুপার কিংস
কলকাতা নাইট রাইডার্স সান রাইজার্স হায়দরাবাদ
রাজস্থান রয়্যালস রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু
দিল্লি ক্যাপিটালস পাঞ্জাব কিংস
লখনউ সুপার জায়ান্টস
সূত্রঃ Dhaka Post

You May Also Like