এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ হেরে বিসিবির দিকে আঙ্গুল তুলে দুষলেন আফগানরা

প্রথম ওয়ানডেতে আফগানিস্তানের ৭ উইকেট নিলেন বাংলাদেশের পেসাররা। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলামরা পেলেন ৪ উইকেট। তাদের সাফল্যের বিপরীতে নির্বিষ থাকলেন আফগানিস্তানের স্পিন ত্রয়ী। অথচ সিরিজ শুরুর আগে রশিদ খান, মুজিব রহমান ও মোহাম্মদ নবির দিকে ছিল সবার বাড়তি নজর। সিরিজ হারের পর আফগান উইকেটরক্ষক-ব্যাটার রহমানউল্লাহ গুরবাজ দায়ি করলেন, তারা স্পিনে এক নম্বর বলে বাংলাদেশ বানিয়েছে পেসবান্ধব উইকেট।

শুক্রবার এক ম্যাচ হাতে রেখে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে বাংলাদেশ দল। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে তারা জিতেছে ৮৮ রানের বড় ব্যবধানে। টাইগারদের ছুঁড়ে দেওয়া ৩০৭ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ২৯ বাকি থাকতে আফগানরা অলআউট হয় ২১৮ রানে। এই ম্যাচে বাংলাদেশের ব্যাটারদের বিপাকে ফেলতে পারেননি সফরকারী স্পিনাররা। সেঞ্চুরিয়ান লিটন দাস ও হাফসেঞ্চুরিয়ান মুশফিকুর রহিম অনায়াসে মোকাবিলা করেন তাদের। লেগ স্পিনার রশিদ সাকিব আল হাসানের উইকেট নিলেও ১০ ওভারে দেন ৫৪ রান। অফ স্পিনার মুজিব উইকেটশূন্য থাকেন ১০ ওভারে ৪৯ রান দিয়ে। আর স্পিন অলরাউন্ডার নবি করতে পারেন কেবল ৪ ওভার। খরুচে বোলিংয়ে ২৬ রান দেওয়ায় তাকে আর আক্রমণে আনেননি আফগান দলনেতা হাশমতউল্লাহ শহিদি।

যদিও ওয়ানডেতে তাদের কার্যকারিতা নিয়ে আছে নানা প্রশ্ন, তবে গুরবাজ দাবি করেন তাদের স্পিন আক্রমণ বিশ্বের সেরা। তাই বাংলাদেশ পেসবান্ধব উইকেট বানিয়েছে বলে ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে জানান আফগানিস্তানের এই ওপেনার, ‘তারা জানে যে আমাদের স্পিন আক্রমণ এক নম্বর। তাই তারা পেস সহায়ক উইকেট বানিয়েছে। এটা বাংলাদেশের ঘরের মাঠের সিরিজ। তাই আমরা আগে থেকে আশা করেছিলাম যে তারা আমাদের জন্য স্পিন সহায়ক উইকেট বানাবে না।’

পেস আক্রমণের বিপক্ষে আফগানদের দুর্বলতার কথা অজানা নয়। নিজেদের ব্যাটিং পারফরম্যান্সের বিশ্লেষণে তিনি জানান, ‘তবে মূল ব্যাপারটা হলো, আমরা ব্যাটিং ইউনিট হিসেবে ভালো করতে পারিনি। আশা করি, আমরা আগামী ম্যাচে ভালো করব। এটা স্পিন কিংবা পেসের ব্যাপার নয়। আমাদের আরও কিছুটা সময় ধরে ব্যাটিং করতে হবে।’

You May Also Like