আফগানদের বিপক্ষে বিশাল জয় পাওয়ার কৃতিত্ব যাদেরকে দিলেন তামিম ইকবাল

আফগানিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে টানা জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ দল। তামিম ইকবালের নেতৃত্বাধীন টাইগাররা প্রথম ম্যাচে ও দ্বিতীয় ম্যাচে টানা জয় পাওয়ায় এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে। সেই সাথে ওয়ানডে বিশ্বকাপ সুপার লিগেও প্রথম দল হিসেবে ১০০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে উঠে এসেছে টাইগাররা।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে এদিন প্রথমে ব্যাটিং করতে নামা বাংলাদেশ দল লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে চড়ে এদিন বড় সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ দল। লিটন-মুশফিক এদিন ২০২ রানের জুটি গড়লে এই জুটি বিচ্ছিন্ন হয় ১২৬ বল মোকাবেলায় ১৩৬ রান করে ফরিদ আহমেদের শিকারে পরিণত হয়ে লিটন মাঠ ছাড়লে।

সেই সাথে লিটনের সাথে থাকা মুশফিকুর রহিমও শতকের কাছে গিয়েছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত ৯৩ বল মোকাবেলায় মুশফিক থামেন ব্যক্তিগত ৮৬ রানে। এই দুই ব্যাটসম্যানের দুর্দান্ত ইনিংসে ভর করেই বাংলাদেশ দল নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ৩০৬ রানের বড় পুঁজি পায়।

৩০৭ রানের বিশাল লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরু থেকেই ধীরগতির ব্যাটিং করতে থাকে আফগানিস্তান। একের পর ধারাবাহিক বিরতিতে টাইগার বোলাররা উইকেট তুলে নিতে থাকেন এদিন।

মাঝখানে রহমত শাহ ও নজিবউল্লাহ জাদরান অর্ধশতক হাঁকিয়ে দলের রান কিছুটা এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলেও তা ধোপে টিকেনি। ৪৫ ওভার ১ বলে শেষ পর্যন্ত আফগানিস্তান ২১৮ রানে অলআউট হলে বাংলাদেশ দল ম্যাচ জিতে নেয় ৮৮ রানের বিশাল ব্যবধানে। বল হাতে তাসকিন আহমেদ ও সাকিব আল হাসান ২টি করে উইকেট নেয়ার পাশাপাশি ১টি করে উইকেট নেন মুস্তাফিজ, শরিফুল, মিরাজ, মাহমুদউল্লাহ ও আফিফ হোসেন ধ্রুব।

এদিকে ম্যাচ জয়ের পর টাইগারদের অধিনায়ক তামিম ইকবাল প্রশংসায় ভাসিয়েছেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসকে। ম্যাচ শেষে তামিম বলেন, ‘’লিটন ও মুশফিক যে পার্টনারশিপটা করেছে তা অসাধারণ ছিল। যদিও আমরা ব্যাট হাতে শেষটা ভালো করতে পারিনি কিন্তু বোলাররা ভালো করেছে। বোলাররা দুর্দান্ত ছিল। আমাদের জন্য ম্যাচ জেতা ও পয়েন্ট পাওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যখন ভালো খেলবেন তখন সর্বোচ্চ পয়েন্টটাই অর্জন করতে চাইবেন।‘’

You May Also Like