বাংলাদেশের অবিস্মরণীয় জয়, ক্রিকেট ইতিহাসকে পাল্টে দিয়ে আফিফ-মিরাজের বিশ্বরেকর্ড

স্বাগতিক বাংলাদেশ ও সফরকারী আফগানিস্তানের মধ্যকার প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশ অবিস্মরণীয় ৪ উইকেটে জিতেছে। এই জয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল টাইগাররা। জয়ে মূল অবদান ছিল আফিফ হোসেন ধ্রুব ও মেহেদি হাসান মিরাজের বিশ্ব রেকর্ড জুটির।

সাগরিকায় টস জিতে ব্যাট করতে নেমে আফগানিস্তান জড়ো করে ২১৫ রান। ৪৯.১ ওভারে অলআউট হওয়ার আগে দৃঢ়তা প্রদর্শন করেন নাজিবউল্লাহ জাদরান। ৮৪ বলের মোকাবেলায় ৪টি চার ও ২টি ছক্কা হাঁকিয়ে ৬৭ রান করেন তিনি। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে রহমত শাহ ৩৪, অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ শহিদি ২৮ ও মোহাম্মদ নবী ২০ রান করেন।

বাংলাদেশের পক্ষে মুস্তাফিজুর রহমান তিনটি এবং সাকিব আল হাসান, তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলাম দুটি করে উইকেট শিকার করেন।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ভালো শুরুর ইঙ্গিত দেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। তবে দলীয় ১৩ রানে লিটন দাসকে হারানোর পর ধ্বস নামে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে। এতে ভয়ানক বিপর্যয়ে পড়ে যায় স্বাগতিক দল। দলীয় রান ৫০ পেরোনোর আগে লিটন-তামিম ছাড়াও একে একে সাজঘরে ফেরেন মুশফিকুর রহিম, ইয়াসির আলী, সাকিব আল হাসান ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

এর মধ্যে বাঁহাতি পেসার ফজলহক ফারুকি একাই শিকার করেন তামিম, লিটন, মুশফিক ও ইয়াসিরকে। বল হাতে আফগানিস্তানের দুর্দান্ত শুরুর পর বাংলাদেশের পরাজয়কে মনে হচ্ছিল নিছক সময়ের ব্যাপার। তবে তখন অবিশ্বাস্য প্রতিরোধ গড়ে তোলেন আফিফ হোসেন ধ্রুব ও মেহেদী হাসান মিরাজ।

সপ্তম উইকেটে দুজনে গড়েন বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের জুটি, যা ৫০ রানের মধ্যে ৬ উইকেটের পতনের পর যেকোনো উইকেটে ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা পার্টনারশিপ। রান তাড়ায় ৭ম উইকেট জুটিতে এটাই বিশ্বের সেরা ইনিংস। সপ্তম ব্যাটার হিসেবে আফিফ ও অষ্টম ব্যাটার হিসেবে মিরাজ খেলেন বাংলাদেশের সেরা ইনিংস। তাদের ঠাণ্ডা মাথার ব্যাটিং বাংলাদেশকে অবিশ্বাস্যভাবে ম্যাচে ফিরিয়ে জয়ের বন্দরে ভেড়ায়।
১৭০ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ে আফিফ-মিরাজ জয় নিশ্চিত করেন ৪ উইকেট ও ৭ বল হাতে রেখে। মিরাজ ১১৫ বলে ৯৩ ও আফিফ ১২০ বলে ৮১ রান করে অপরাজিত থাকেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরটস : আফগানিস্তান

আফগানিস্তান ২১৫/১০ (৪৯.১ ওভার)

নাজিবউল্লাহ ৬৭, রহমত ৩৪, শহিদি ২৮, নবী ২০

মুস্তাফিজ ৩৫/৩, শরিফুল ৩৮/২, সাকিব ৫০/২, তাসকিন ৫৫/২

বাংলাদেশ : ২১৫/৬ (৪৮.৫ ওভার)

মিরাজ ৯৩*, আফিফ ৮১*

ফজলহক ৫৪/৪, রশিদ ৩০/১, মুজিব ৩২/১

ফল : বাংলাদেশ ৪ উইকেটে জয়ী।

You May Also Like