টাইগাড়দের এই ২ ক্রিকেটারকে টার্গেট করেছে শাহরুখের কেকেআর

আগামী আইপিএলের গেমপ্ল্যান তৈরি করতে বসে পড়েছে সবকটি ফ্র্যাঞ্চাইজি। ১৮ ফেব্রুয়ারি চেন্নাইয়ে বসছে নিলাম। সেদিনই পছন্দের ক্রিকেটার কিনে দল সাজিয়ে নেওয়ার সুযোগ সব দলের কাছে। আর অন্যান্য দলের মতো সেই নিলামের নীল নকশা তৈরি করতে বসে পড়েছে শাহরুখ খানের কলকাতা নাইট রাইডার্সও।

নিলামে কি এবার বাংলার কোনও ক্রিকেটারের জন্য ঝাঁপাবে কেকেআর? সূত্র মারফত সেরকমই ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। সদ্য শেষ হয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফি। নতুন প্রতিভা খুঁজে বার করার জন্য প্রত্যেক মরসুমে এই টুর্নামেন্টকেই পাখির চোখ করে আইপিএলের দলগুলি। এবারের টুর্নামেন্টে এলিট গ্রুপ বি-র খেলাগুলো হয়েছিল কলকাতায়।

এই গ্রুপে বাংলা ছাড়াও ছিল তামিলনাড়ু, ঝাড়খন্ড, অসম, হায়দরাবাদ ও ওড়িশা। ইডেন গার্ডেন্সে ও সল্ট লেকে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঠে ম্যাচগুলি হয়। সাধারণত এই টুর্নামেন্টের প্রত্যেক ভেন্যুতেই আইপিএলের বিভিন্ন দল স্পটার পাঠিয়ে দেয়। যাতে নতুন কোনও প্রতিশ্রুতিমান খেলোয়াড় চোখে পড়লে টিম ম্যানেজমেন্টকে ওয়াকিবহাল করতে পারে তারা।

এবং নিলামে সেই সমস্ত ক্রিকেটারদের জন্য দর হাঁকতে পারে সংশ্লিষ্ট ফ্র্যাঞ্চাইজি। তবে এবার করোনা পরিস্থিতিতে প্রত্যেক কেন্দ্রে স্পটার পাঠানো সম্ভব হয়নি অনেক ফ্র্যাঞ্চাইজিরই। কলকাতা নাইট রাইডার্স কর্তৃপক্ষ বাংলারই এক প্রাক্তন ক্রিকেটারকে দায়িত্ব দেয়, নতুন কোনও প্রতিভা চোখে পড়লেই তাদের জানানোর জন্য। শোনা যাচ্ছে, সেই ফর্মুলাতেই এবার ৪ ক্রিকেটারকে বাছাই তালিকায় রাখতে পারে শাহরুখ খানের দল।

যাঁদের মধ্যে রয়েছেন বাংলার দুই ক্রিকেটার। বিবেক সিংহ ও আকাশ দীপ। বিবেক ব্যাটসম্যান। উইকেটকিপিংও করেন। সদ্যসমাপ্ত সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে বাংলার হয়ে ৫ ম্যাচে ২০৮ রান করেছেন। যার মধ্যে ঝাড়খন্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচ জেতানো ৬৪ বলে ১০০ রানের বিধ্বংসী ইনিংস ছিল। একটি হাফসেঞ্চুরিও করেছিলেন। আকাশ দীপ পেসার। ডানহাতি জোরে বোলার সৈয়দ মুস্তাক আলিতে ৫ ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়েছেন।

একটি ম্যাচে ৪ উইকেটও ছিল। গত মরসুমে রাজস্থান রয়্যালস তাঁকে নেট বোলার হিসাবে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে নিয়ে গিয়েছিল। বিশ্বস্ত সূত্রের খবর, কেকেআরের র‌্যাডারে রয়েছে আরও ২ নাম। একজন ঝাড়খন্ডের ব্যাটিং অলরাউন্ডার উৎকর্ষ সিংহ। যিনি ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি অফস্পিন বল করেন। এবং পাওয়ার প্লে-তে নিয়মিত বল করেন। সৈয়দ মুস্তাক আলি টি-টোয়েন্টিতে বাংলার বিরুদ্ধে বল হাতে ৪ ওভারে মাত্র ১৯ রানে এক উইকেট নিয়েছিলেন উৎকর্ষ।

নিলামের টেবিলে ২২ বছরের ক্রিকেটারের দিকেও নজর থাকবে কেকেআরের। এছাড়া অসমের অলরাউন্ডার রজ্জাকউদ্দিন আমেদের নামও কেকেআর শিবিরে পৌঁছেছে। সৈয়দ মুস্তাক আলিতে তাঁর পারফরম্যান্সও নজর কেড়েছে অনেকের।

জানা গিয়েছে, কেকেআরের ব্যাটিং পরামর্শদাতা অভিষেক নায়ার এই চার ক্রিকেটারের সম্পর্কেই খোঁজখবর নিয়ে রেখেছেন। আসন্ন নিলামে সবকটি দলের মধ্যে সবচেয়ে কম টাকা হাতে নিয়ে যাবে কেকেআর।

শাহরুখ-জুহি চাওলার দলের হাতে ক্রিকেটার কেনার জন্য পড়ে রয়েছে মাত্র ১০ কোটি ৮৫ লক্ষ টাকা। তাই ভারতীয় ক্রিকেটারের জন্যই ঝাঁপাতে পারে তারা। বাংলার ক্রিকেটারদের ব্যাপারে নাইট শিবিরের উদাসীনতার প্রসঙ্গ তুলে ফি বছর অনেক অভিযোগ ওঠে। এবার কি ছবিটা বদলাবে?

Related Post

x