337

দলকে তৃতীয় জয় এনে দিয়ে দেখেনিন কত টাকা পুরস্কার পেলেন ডু প্লেসিস

এবারের আসরে যেন উড়ছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। দেশী-বিদেশি তারকাদের নিয়ে ভারসাম্যপূর্ণ দল গঠন করা কুমিল্লা এবারের আসরে তুলে নিয়েছে নিজেদের তৃতীয় জয়। ঢাকা পর্বে প্রথম দুই ম্যাচ জয়ের পর চট্টগ্রাম পর্বে এসেও স্বাগতিকদের হারিয়ে তিন ম্যাচের মধ্যে তিনটিতেই জয় তুলে নিয়েছে কুমিল্লা।ব্যাট হাতে এদিন কুমিল্লার হয়ে দলে শুরু থেকেই এগিয়ে নিয়েছিলেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান ফাফ ডু প্লেসিস। একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে রানের গতি বাড়ানোর পাশাপাশি ব্যক্তিগত স্কোরটাও নিয়ে গেছেন ম্যাচের সর্বোচ্চ জায়গাতে।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

প্রথমে ব্যাটিং করতে নামা কুমিল্লার ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয় ব্যাট হাতে ব্যর্থ হলেও তিন নম্বরে নামা প্লেসিস জুটি বাধেন লিটন দাসের সাথে। লিটনের সাথে ৮০ রানের পার্টনারশিপ গড়ে যেন বড় স্কোরের ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন প্লেসিস। ৩৪ বল মোকাবেলায় ৪৭ রান করে লিটন সাজঘরে ফেরত গেলেও ব্যাট হাতে অবিচল ছিলেন প্লেসিস।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

প্লেসিস পরবর্তিতে জুটি বাধেন ক্যামেরন ডেলপোর্টের সাথে। এই দুই ব্যাটসম্যান মিলে রানফোয়ারা ছুটিয়ে এদিন কুমিল্লাকে বড় পুঁজি এনে দিয়েছেন। ২৩ বল মোকাবেলায় ডেলপোর্ট অপরাজিত ছিলেন ৫১ রানে।প্লেসিস অবশ্য ছিলেন আরও আগ্রাসী। চট্টগ্রামের বোলারদের তুলোধুনো করে প্লেসিস এদিন খেলেন ৫৫ বল মোকাবেলায় ৮৩ রানের ইনিংস। যেখানে ছিল ৮টি চার ও ৩টি ছক্কার মার। এই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানের স্ট্রাইকরেট ছিল ১৫০.৯১।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

প্রথম ইনিংসে কুমিল্লার পুঁজি দাঁড়ায় ৩ উইকেট হারিয়ে ১৮৩ রানে। যেখানে কুমিল্লার বোলিং তোপে পড়ে জয়ের কোনো সম্ভাবনাই তৈরি করতে পারেনি চট্টগ্রাম চেলেঞ্জার্স। তারা শেষ পর্যন্ত থামে মাত্র ১৩১ রানে। ফলে কুমিল্লা এই ম্যাচ জিতে নিয়েছে ৫২ রানের বড় ব্যবধানে।এদিকে দলের জয়ে এমন অবদান রাখার পর ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন ফাফ ডু প্লেসিস। এই ব্যাটসম্যানকে ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে দেয়া হয়েছে ৫০০ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশী মুদ্রায় যার পরিমান দাঁড়ায় ৪৩ হাজার টাকা।