336

অনেক নাটকের পর মিরাজদের বিবর্ণ পারফরম্যান্স

আগের দিন মেহেদী হাসান মিরাজকে নিয়ে অস্বস্তিকর সময় পার করেছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। যার প্রভাব পড়তে দেখা গেলো মাঠে! সোমবার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং তিন বিভাগে প্রত্যাশিত পারফরম্যান্স দেখাতে পারেনি স্বাগতিকরা। চট্টগ্রামের নখদন্তহীন বোলিংয়ে ১৮৩ রান করেছিল কুমিল্লা। জবাবে ১৫ বল হাতে রেখে ১৩১ রানে অলআউট হয়ে গেছে চট্টগ্রাম। ফলে ৫২ রানে জিতে তিন ম্যাচে অপরাজিত থাকলো ইমরুল কায়েসের দল।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

রবিবার সারাটা দিন আলোচনায় ছিলেন মিরাজ। কঠিন সময় পার করা এই অলরাউন্ডার কেমন করেন, সেটি দেখতে মুখিয়ে ছিলেন অনেকে। যেহেতু মানসিকভাবে স্বস্তিতে ছিলেন না। কিন্তু মাঠের পারফরম্যান্সে দেখা গেলো, দলের পাশাপাশি ব্যাট-বল হাতে ব্যর্থ হয়েছেন এই তরুণ। তিন ওভারে ৩০ রান খরচ করলেও কোনও উইকেট পাননি। ব্যাটিংয়েও থেমে যেতে হয়েছে মাত্র ১০ রানে।জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ১৮৪ রানের লক্ষ্যে শুরুতেই কেনার লুইসকে হারায় চট্টগ্রাম। ক্যারিবীয় এই ব্যাটার একটি ম্যাচেও ভালো কোনও ইনিংস খেলতে পারেননি।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

লুইসের বিদায়ের পর একপ্রান্ত আগলে রেখে ১৬ ওভার পর্যন্ত ব্যাটিং করে গেছেন উইল জ্যাকস। কিন্তু যোগ্য সঙ্গীর অভাবে সেই লড়াইও হয়েছে ব্যর্থ। ৪২ বলে ৬৯ রান করে অষ্টম ব্যাটার হিসেবে আউট হয়েছেন জ্যাকস। ৭ চার ও ৩ ছক্কায় তিনি নিজের ইনিংসটি সাজিয়েছেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান আসে পেস বোলিং অলরাউন্ডার মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরীর ব্যাট থেকে। ১২ বলে ১ চার ও ১ ছক্কায় ১৩ রানের ইনিংস খেলেছেন।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

এছাড়া নেতৃত্ব হারিয়ে ঢাকায় ফিরে যেতে চাওয়া মিরাজ পর পর দুই বলে এক ছক্কা ও এক চারে ১০ রান তুলে সাজঘরে ফিরেছেন। মূলত লিটনের দারুণ কিপিংয়ে স্টাম্পড হয়ে ফিরতে হয়েছে মিরাজকে। চট্টগ্রামের এই তিন ব্যাটার ছাড়া আর কেউই দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছাতে পারেননি।কুমিল্লার বোলারদের মধ্যে ধারাবাহিকভাবে ভালো বোলিং করে যাচ্ছেন অফস্পিনার নাহিদুল ইসলাম। আজকের ম্যাচেও ৪ ওভার বোলিংয়ে ২৩ রান খরচায় তিনটি উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া মোস্তাফিজ, তানভীর ও শহিদুল ইসলাম দুটি করে উইকেট নিয়েছেন।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

এর আগে ৫ দিন পর ম্যাচ খেলার সুযোগ পাওয়া কুমিল্লা টস হেরেও দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছে। বড় গ্যাপে প্রস্তুতিটা কেমন ছিল, তার প্রদর্শনীই যেন হলো তাদের ব্যাটিংয়ে।টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বর্ণহীন পারফরম্যান্সের পর ঘরের মাঠে পাকিস্তান সিরিজে বাদ পড়েছিলেন লিটন। এছাড়া বিপিএলের শুরুর ম্যাচে ব্যক্তিগত কারণে ছিলেন না। তার পরেও সোমবার নিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে রানের দেখা পেয়েছেন। তিন রানের জন্য হাফসেঞ্চুরি বঞ্চিত হয়েছেন। ৩৪ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজান লিটন।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

এছাড়া কুমিল্লার হয়ে ছন্দে ফিরে হাফসেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন দুই প্রোটিয়া তারকা ফাফ দু প্লেসি ও ক্যামেরুন ডেলপোর্টও। ৫৫ বলে ৮ চার ও ৩ ছক্কায় ৮৩ রানে অপরাজিত থাকেন দু প্লেসি। অন্যদিকে শেষ তিন ওভারে ঝড় তোলেন ডেলপোর্ট। ২৩ বলে ৪ চার ও ৩ ছক্কায় ৫১ রানে অপরাজিত থাকেন এই প্রোটিয়া ব্যাটার। এই দুজনের অবিচ্ছিন্ন ১০৩ রানের জুটিতেই ৩ উইকেট হারিয়ে ১৮৩ রান সংগ্রহ করে কুমিল্লা।
চট্টগ্রামের পক্ষে ৪ ওভার বল করে ২৩ রান খরচায় দুটি উইকেট পান নাসুম। ১টি উইকেট পেয়েছেন বেনি হাওয়েল।