সাকিব-লিটন জুটিতে বড় স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ

ক্রিজে থিতু হয়েছেন, জুটি গড়েছেন কিন্তু ব্যক্তিগত ইনিংস কিংবা জুটি কোনটাই বড় করতে পারেননি আউট হওয়া বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। প্রথম দুই সেশন নিজেদের করে নেওয়ার সম্ভাবনা জাগিয়েও দুইটি করে উইকেট হারায় টাইগাররা। তবে শেষ সেশনে মুশফিকুর রহিমকে হারালেও সাকিব আল হাসান ও লিটন দাসের ব্যাটে ৫ উইকেটে ২৪২ রান তুলে ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথমদিন শেষ করে বাংলাদেশ।
সাদমান ইসলামের ফিফটির (৫৯) সাথে নাজমুল হোসেন শান্ত (২৫), মুমিনুল হক (২৬), মুশফিকুর রহিমরা (৩৮) ক্রিজে কাটিয়েছেন ভালো সময়। তবে কেউই সেটিকে টেনে নিতে পারেননি লম্বা সময় পর্যন্ত। দিনশেষে সাকিব ৩৯ ও লিটন দাস ৩৪ রানে অপরাজিত।

সাগরিকার টিপিক্যাল স্পিন উইকেটে চার স্পিনার ও এক পেসার নিয়ে নামে স্বাগতিক বাংলাদেশ। তবে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে প্রথম দিন ক্যারিবিয়ান স্পিনার জোমেল ওয়ারিক্যান ও রাখিম কর্নওয়াল সময়ের সাথে সাথে ভালোই পরীক্ষা নেন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের। ৩ উইকেট নিয়ে ক্যারিবিয়ানদের সেরা বোলারও বাঁহাতি অর্থোডক্স ওয়ারিক্যান। শেষ বিকেলে কর্নওয়ালের বলে লিটন দাসের সহজ ক্যাচ মিস করেন ক্রুমাহ বোনার।

৪ উইকেটে ১৪০ রান নিয়ে চা বিরতিতে যাওয়া বাংলাদেশের জন্য দিনের সবচেয়ে সফল সেশন চা বিরতির পরের সেশনটি। লাঞ্চের আগে ২ উইকেটে ৬৯, চা বিরতির আগে ২ উইকেটে ৭১ রানের পর শেষ সেশনে কেবল মুশফিকুর রহিমের উইকেট হারিয়ে যোগ করে ১০২ রান। মুশফিক ওয়ারিক্যানের বলে প্রথম স্লিপে কর্নওয়ালকে ক্যাচ দিলে সাকিবের সাথে ৫৯ রানের জুটি ভাঙে। আউট হওয়ার আগে ৬৯ বলে ৬ চারে ৩৯ রানের ইনিংসটি খেলেন এই উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান।

মুশফিকের বিদায়ের পর লিটন দাসকে নিয়ে দিনের খেলা শেষ করে আসেন ২০১৯ সালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের পর প্রথম টেস্ট খেলতে নামা সাকিব। ৯২ বলে ৪ চারে ৩৯ রানে অপরাজিত সাকিব, ৫৮ বলে ৬ চারে লিটন অপরাজিত ৩৪ রানে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (১ম দিন শেষে)

বাংলাদেশ ২৪২/৫ (৯০), সাদমান ৫৯, তামিম ৯, শান্ত ২৫, মুমিনুল ২৬, মুশফিক ৩৮, সাকিব ৩৯*, লিটন ৩৪*; রোচ ১৬-৫-৪৪-১, ওয়ারিক্যান ২৪-৫-৫৮-৩।

চোট কাটিয়ে ২০১৯ সালের পর প্রথম টেস্ট খেলতে নেমে লম্বা সময় ক্রিজে টিকে ফিফটি তুলেও ইনিংস বড় করতে পারেননি ওপেনার সাদমান ইসলাম। তবে বাঁহাতি স্পিনার ওয়ারিক্যানের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফেরা সাদমানকে রিভিউ না নেওয়ার আক্ষেপ করতেই হবে। যে বলটিতে সুইপ করতে গিয়ে এলবিডব্লিউ হয়ে কোন সংশয় ছাড়াই সাজঘরে ফিরেছেন সদমান সেটিই টিভি রিপ্লেতে লেগ স্টাম্প মিস করতে দেখা যায়।

২ উইকেটে ৬৯ রান নিয়ে লাঞ্চে যাওয়ার সময় সাদমান অপরাজিত ছিলেন ৩৩ রানে, অধিনায়ক মুমিনুল ছিলেন ২ রানে। লাঞ্চের ঠিক আগে শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের লাফিয়ে ওঠা বলে অস্বস্তির আভাস মুমিনুলের ব্যাটে। শর্ট লেগে দুইবার ধরা পড়তে পড়তেও বেঁচে যান। লাঞ্চের পর কেটেছে সেই জড়তা, রান করছিলেন সাবলীলভাবে। বাঁহাতি অর্থোডক্স ওয়ারিক্যানের বলে ২৬ রান করে ফেরার আগে সাদমানের সাথে গড়েন ৫৩ রানের জুটি।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment