অশোক দিন্দার বিদায়

নিয়ম তো নিয়মও তা কখনো পাল্টায় না সাবইকে একদিন না একদিন সবাইকে নিজ নিজ জায়গা ছেড়ে দিতে হয় অন্য অরেক জনের জন্য। ভারতীয় পেস বোলার অশোক দিন্দা প্রায় ১৫ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের ইতি টানলেন।

দীর্ঘদিন ধরেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ধারেকাছে নেই এই পেসার। এবার সবধরনের ক্রিকেটকেই একসাথে বিদায় বললেন তিনি। তার ক্রিকেট ক্যারিয়ারে অবদান রাখার জন্য সৌরভ গাঙ্গুলিকেও বিশেষ ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

২০০৫ সালে বেঙ্গলের পক্ষে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল দিন্দার। ভারতের সর্বশেষ প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট ২০১৯ পর্যন্তই তিনি বেঙ্গলের পক্ষে খেলেছেন। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টেস্ট খেলার সুযোগ এই বোলারের হয়নি। তবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তার রেকর্ড কিন্তু মন্দ নয়, ১১৬ ম্যাচে শিকার করেছেন ৪২০টি উইকেট।

২০০৮ সালে একই দলের পক্ষে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেট অভিষেক হয় এই ডানহাতি পেসারের। ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো খেলে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে অভিষেকের মাত্র দেড় বছরের মাথায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতের জার্সি গায়ে চাপান। ২০১০ সালে ভারতের পক্ষে তার ওয়ানডে অভিষেক হয়। তবে ২০১৩ সালেই থমকে যায় এই বাঙালি পেসারের ওডিআই ক্যারিয়ার। ১৩ ম্যাচে শিকার করেন কেবল ১২টি উইকেট। তবে ছিলেন বেশ খরুচে।

ওয়ানডে ক্রিকেটের আগেই তার টি-টোয়েন্টি অভিষেক হয়েছিল। ২০০৯ সালের ডিসেম্বরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দিন্দার অভিষেক হয়। খেলেছেন তিন বছর। ২০১২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৯ ম্যাচ খেলে শিকার করেছেন ১৭টি উইকেট। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ৯৮ ম্যাচে শিকার করেন ১৫১টি উইকেট।

৩৬ বছর বয়সী এই পেসার অবসর প্রসঙ্গে বলেন, ‘আজ আমি ক্রিকেটের সব সংস্করণ থেকে অবসর নিচ্ছি। অনেক মানুষই ছিলেন, আমার বাবা-মাসহ, যারা আমার ক্যারিয়ারে অনেক সহায়তা করেছেন, তাদেরকে আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই। আমার মাঠের অভিভাবক, সৌরভ গাঙ্গুলিকেও ধন্যবাদ।’

দিন্দা আরও বলেন, ‘আমার অবসরের কথা জানিয়ে বিসিসিআই ও জিসিএকে মেইল করেছি। দাদাকে (সৌরভ) আবারো ধন্যবাদ। উনার জন্যই আমি বেঙ্গলে খেলার সুযোগ পেয়েছিলাম। যখন তিনি অধিনায়ক ছিলেন, তখন মিড অফে ফিল্ডিং করতেন এবং সবসময় আমাকে উপদেশ দিতেন ও উৎসাহিত করতেন।’

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment