বিপিএল নিয়ে যে প্রশ্ন করায় ক্ষেপে গেলেন তামিম

কিছু সীমাবদ্ধতা নিয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) এবারের আসর আয়োজন করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এবারের বিপিএল ডিআরএস না পাওয়া, প্রয়োজনীয় মানের বিদেশি না পাওয়াসহ অনেক ক্ষেত্রেই আগের আসর থেকে একটু পিছিয়ে। ফলে বাংলাদেশ ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগের ব্যবস্থাপনায় আগুন লেগেছে।

হতাশ জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। সোমবার (১৮ জানুয়ারি) ঢাকায় মন্ত্রীর জার্সি উন্মোচন অনুষ্ঠানে বিপিএল নিয়ে লাগাতার নেতিবাচক প্রশ্নে অসন্তোষ প্রকাশ করেন তামিম।তামিম বলেন, ‘আমার উত্তরটা আপনারা ইতিবাচকভাবে নেবেন। আমি এখানে বসার পর থেকে প্রথম ৬-৭টা প্রশ্ন হয়েছে, সবই নেতিবাচক। একটাও ইতিবাচক কথা নেই। দল কেন এরকম, ডিআরএস নেই, আম্পায়ারিং এই করবে সেই করবে…’

তামিমের মতে, এত সীমাবদ্ধতার মধ্যেও বিপিএল আয়োজন প্রশংসার দাবি রাখে। তাই আহ্বান জানালেন, বিপিএলের অষ্টম আসর আয়োজনের প্রচেষ্টাকে যেন ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখা হয়। তামিম বলেন, ‘দেখুন, ঘাটতি অবশ্যই থাকবে। সব জায়গায়ই ঘাটতি থাকে। কোন পরিস্থিতিতে এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হচ্ছে এটা বুঝতে হবে। পিএসএলও একই সময়ে হচ্ছে। তারপরও যে টুর্নামেন্টটা হচ্ছে, এটার প্রশংসা করা উচিৎ।’

অনেক চেষ্টা করেও পরিচালনা সংস্থার কর্মীর অভাবে এবার ডিআরএস রাখতে পারছে না বিসিবি। এ নিয়ে তামিমের ভাষ্য, ‘ডিআরএস তো গত বিপিএলগুলোতে ছিল। আমি নিশ্চিত এবার কোনো না কোনো কারণে ডিআরএস নেই। আমি ব্যক্তিগতভাবে ডিআরএস থাকলে অবশ্যই খুশি হতাম, কারণ কোনো ডিসমিসালে আমি আউট না হয়ে থাকলে সেখানে আমার সুযোগ হাতছাড়া হয়ে যাবে। এটা নিয়ে আমরা শুধু নেতিবাচক কথা বলব এর পক্ষে আমি না।’

তামিম আরও বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় এই টুর্নামেন্টের অনেক ইতিবাচক দিক আছে। সামনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে, এখান থেকে এক-দুইটা খেলোয়াড় বাংলাদেশ পেয়ে যেতে পারে। খারাপ আমরা সবসময় খুঁজে বের করতে পারবো। আসুন সেদিকে নজর না দেই। ভালো যা কিছু পাব তাতে মনোযোগ দেওয়া যাক। নেতিবাচক চিন্তা করলে আপনি সারাদিন বলতে পারবেন। তাই ইতিবাচক থাকা উচিৎ।’

You May Also Like