মাশরাফিকে সেরা একাদশে রাখবে কিনা আগাম জানিয়ে দিল ঢাকার কোচ

মাশরাফি বিন মুর্তজা দীর্ঘদিন ধরে মাঠের বাইরে। এক বছরেরও বেশি সময় আগে মাশরাফি সর্বশেষ প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট খেলেছিলেন। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) দিয়ে মাঠে নামার আগে অবশ্য ফিট হতে ঘাম ঝরিয়েছেন।ওজন কমিয়ে ঝরঝরে মাশরাফি ফিট থাকলে তাকে দেখা যাবে বিপিএলের প্রতি ম্যাচেই, এমনটি জানিয়েছেন মিনিস্টার ঢাকার প্রধান কোচ মিজানুর রহমান বাবুল। মাশরাফির ফিটনেস নিয়ে কোনো সংশয় নেই বলেও জানান তিনি।

বাবুল বলেন, ‘দেখুন, যে যত বড় খেলোয়াড় হোক তাকে ফিট থাকতে হবে। ফিট না হলে খেলতে পারবে না। প্রথমত আমরা দেখব সে ফিট আছে কি না।’২০২০ সালের শেষদিকে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের মাঝপথে মাশরাফিকে দলে নেয় জেমকন খুলনা। সেবারও অনেক দিন পর মাঠে নেমে খুলনাকে শিরোপা জেতাতে বড় ভূমিকা রাখেন মাশরাফি। জেমকন খুলনার প্রধান কোচের ভূমিকায় থাকা বাবুল টেনে আনলেন সেই উদাহরণ।

তার ভাষায়, ‘মাশরাফি কিন্তু বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপেও পরের দিকে এসে ম্যাচ জিতিয়েছে, সেবার শুরুতে খেলেনি। এবার বিপিএল খেলার জন্য সে প্রায় ১০ কেজি ওজন কমিয়েছে। তার প্রস্তুতি ওরকম ছিল। মাশরাফি ইজ মাশরাফি… ইনশাআল্লাহ্‌ (নিয়মিতই দেখা যাবে)।’

এক দলে তিন পাণ্ডবকে নিয়ে গেম প্ল্যান সাজানোর অভিজ্ঞতা নতুন নয় বাবুলের জন্য। জেমকন খুলনার সেই দলে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মাশরাফির সাথে ছিলেন সাকিব আল হাসান। সাকিব এবার বরিশালে, তবে মাশরাফি-রিয়াদের সাথে ঢাকায় আছেন তামিম ইকবাল।

বাবুল জানালেন, এবার দল নিয়ে কাজ করা আরও সহজ হবে তার জন্য। বাবুলের যুক্তি, ‘গত বছরও (বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ) এরকমই ছিল। এ বছর তামিম এসেছে (সাকিব অন্য দলে)। ছোটবেলা থেকে তামিমকে আমি কোচিং করাই। গত ডিপিএলে আমার অধীনে খেলেছে। তামিমের সাথে অনেক বেশি ফ্রেন্ডলি আমি। গত বছরও উপভোগ করেছি, এবার আরও বেশি উপভোগ করব আশা করি।’

দল নিয়ে আশাবাদী বাবুল অভিজ্ঞতাকেই মানছেন শক্তির জায়গা। তিনি বলেন, ‘সব মিলিয়ে আমার দল ভালো। অভিজ্ঞতার কারণে আমার দলকে এগিয়ে রাখব। এটাই আমাদের শক্তির মূল জায়গা। টি-টোয়েন্টি অভিজ্ঞদের খেলা। বিপদে অভিজ্ঞরাই এগিয়ে থাকে। আমাদের বেশিরভাগই অভিজ্ঞ খেলোয়াড়। খুব ভালো একটা কম্বিনেশন আমাদের আছে। ইনশাআল্লাহ আমরা ভালো করব।’

You May Also Like