সালাউদ্দিন ও রোডস এক দলে

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স চেয়েছিল তাদের প্রধান কোচ হিসেবে মোহাম্মদ স্লাউদ্দিন। কিন্তু গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, দেশের শীর্ষ কোচরা প্রথমে রাজি না হওয়ায় ফ্র্যাঞ্চাইজিটি স্টিভ রোডসের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল।কুমিল্লা পরে ভিক্টোরিয়ান্স স্লাডিনে যোগ দেন। তিনি প্রধান কোচ। ফলস্বরূপ, ৫৭ বছর বয়সী রোডসকে দলের উপদেষ্টা করা হয়েছে।রোডস দলের সঙ্গে যোগও দিয়েছেন। বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ হিসেবে সফল একটি অধ্যায় কাটানো সাবেক এই ইংলিশম্যানের এভাবে অন্তর্ভূক্তিকে কিভাবে দেখছেন সালাউদ্দিন?

তিনি হেড কোচ হিসেবে থাকছেন, রোডসের দায়িত্ব আসলে কী হবে? তার সঙ্গে কাজ করার বিষয়টিকে অবশ্য ইতিবাচক হিসেবেই নিচ্ছেন দেশসেরা কোচ।সালাউদ্দিন বলেন, ‘যদি এমন কিছু হয়, যাতে কিনা দলের লাভ। আমার মনে হয়, এটা খারাপ কিছু না। কারণ উনি অনেক অভিজ্ঞ কোচ। বাংলাদেশ দলেরও কোচ ছিলেন। আমার মনে হয়, বাংলাদেশের অন্যতম সফল কোচও ছিলেন তিনি। তার মাথা থেকে অনেক ভালো কিছু আসতে পারে।’

রোডসের কাছ থেকে শিখতেও আপত্তি নেই সালাউদ্দিনের। তার কথা, ‘সে যেহেতু আমাদের পরামর্শক হিসেবে আসছে। আমিও মনে হয় তার কাছ থেকে অনেক কিছু শিখতে পারব। যদি কারও কাছ থেকে কিছু নেওয়া যায়, তবে মন্দ কী!’

প্রথম দিন দলের ক্রিকেটারদের নিয়ে অনুশীলনে দেখা গেছে রোডসকে। সেই অভিজ্ঞতা কেমন ছিল? সালাউদ্দিনের উত্তর, ‘সে খুবই ভালো মানুষ। দল নিয়ে রোমাঞ্চিত। সে খুব ভালো কিছু পরামর্শ দিয়েছে, কীভাবে কী করতে হবে, না হবে। যদি ভালো কিছু হয়, তবে সেটা ইতিবাচকভাবেই নেওয়া উচিত।’

You May Also Like