আমার আর সাকিবের রসায়ন সবসময়ই ভালো: সুজন

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের অন্যতম সফল দল ঢাকা ফ্র্যাঞ্চাইজিতে চার বছর একসঙ্গে কাজ করেছে। এবার দল বদল হলেও বদলায়নি সাকিব আল হাসান-খালিদ মাহমুদ সুজনের জুটি। বিপিএলের অষ্টম আসরে ফরচুন বরিশালের আইকন সাকিব ও প্রধান কোচ সুজান।
টুর্নামেন্ট শুরু হতে আর মাত্র পাঁচ দিন বাকি। শুরু হয়েছে দলগুলোর প্রস্তুতি। ফরচুন বরিশাল বিসিবি একাডেমি মাঠে স্থানীয় খেলোয়াড়দের সাথে তাদের বোঝাপড়া বাড়ানোর মিশনে রয়েছে। এর আগে নিজের দল নিয়ে কথা বলেছেন বরিশালের প্রধান কোচ।

ফরচুন বরিশাল কর্তৃক সরবরাহকৃত ভিডিওবার্তায় সুজন জানিয়েছেন, নতুন দলের হয়ে কাজ করতে মুখিয়ে আছেন তিনি। বিশেষ করে দলে সাকিবের মতো চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেটার থাকায় কাজ আরও সহজ বলে মনে করেন তিনি। সব ঠিক রেখে চ্যাম্পিয়ন হতে আশাবাদী সুজন।

তিনি বলেছেন, ‘ফরচুন বরিশালের হয়ে কাজ করার জন্য আমি খুবই রোমাঞ্চিত। যেই দলে সাকিব আল হাসান আছে, সেই দলে কাজ করা তো সবসময়ই সহজ হয়। আমি আর সাকিব ঢাকার (ঢাকা ডায়নামাইটস) হয়ে চার বছর কাজ করেছি। তো আমার আর সাকিবের রসায়ন সবসময়ই ভালো।’

সুজন আরও বলেন, ‘অনেক চিন্তাভাবনা করেই দল করেছি। তারপরও বলবো যে, প্রত্যেকটা দলই শক্তিশালী। আমরাও যথেষ্ট শক্তিশালী দল। মাঠের পারফরম্যান্সটাই গুরুত্বপূর্ণ যে আমরা মাঠে কতটা ভালো খেলছি, মোমেন্টাম কতটা ভালো থাকে। যদি ওরকম থাকে, তাহলে প্রথমবারের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মতো যথেষ্ট ভালো দল আমরা।’

এসময় ম্যানেজম্যান্টের কাছ থেকে পাওয়া সাপোর্টের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই খুব ভালো। যদিও আমি অনেকদিন দেশের বাইরে নিউজিল্যান্ডে ছিলাম। তবে মিজান ভাইয়ের সঙ্গে অনেকদিন ধরেই পরিচয় আমার। এছাড়া খুব এনার্জেটিক একটা দল পেয়েছি আমি যারা আমার সঙ্গে কাজ করবে। আমি খুবই আনন্দিত। তাদের সঙ্গে কাজ করা দারুণ একটা রোমাঞ্চকর ব্যাপার।’

সুজনের শেষ কথা, ‘আশা করি সব ঠিক থাকলে আমাদের সামর্থ্য আছে… আমাদের দলটা যদি দেখেন খুবই ভারসাম্যপূর্ণ একটা দল টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের জন্য ঠিক যেমন হওয়া উচিত। বাকিটা তো বোঝা যাবে মাঠে।’‘সত্যি বলতে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট এমন একটা খেলা, আপনি বলতে পারবেন না কোনটা ভালো-খারাপ দল। নির্দিষ্ট দিনে যারা ভালো খেলতে পারবে তারাই জিতবে। তবে আমি আশাবাদী ইনশাআল্লাহ্।

ফরচুন বরিশাল স্কোয়াড

দেশি – সাকিব আল হাসান, কাজী নুরুল হাসান সোহান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মেহেদি হাসান রানা, ফজলে মাহমুদ রাব্বি, তৌহিদ হৃদয়, জিয়াউর রহমান, শফিকুল ইসলাম, সৈকত আলী, নাঈম হাসান, তাইজুল ইসলাম, সালমান হোসেন ইমন, ইরফান শুক্কুর ও মুনিম শাহরিয়ার।বিদেশি – ক্রিস গেইল (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), মুজিব উর রহমান (আফগানিস্তান), ডোয়াইন ব্রাভো (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), আলঝারি জোসেফ (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ও জ্যাক লিনট (ইংল্যান্ড)।

কোচিং স্টাফ

হেড কোচ – খালেদ মাহমুদ সুজন

ব্যাটিং পরামর্শক – নাজমুল আবেদিন ফাহিম

সহকারী কোচ – ফয়সাল হোসেন ডিকেন্স

সহকারী কোচ – আশিকুর রহমান মজুমদার

ফিজিও – বায়েজিদ ইসলাম

ট্রেইনার – আনোয়ার হোসেন শিকদার

পারফরম্যান্স অ্যানালিস্ট – শ্রীরাম সৌম্যজুলা

চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার – সাব্বির খান শাফিন

You May Also Like