ব্রেকিং নিউজঃ আইপিএলে আসছে বড় সর পরিবর্তন; নতুন নামে কামে আইপিএল

inCollage 20220111 204706121

করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের কারণে আসন্ন আইপিএল নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যেই জনপ্রিয় ক্রিকেট লিগটির টাইটেল স্পন্সরশিপে বদল আসছে। চীনা মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থা ভিভোর বদলে টাটা গ্রুপের দখলে যাচ্ছে লিগটি। আইপিএলের চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল খোদ এমনটা জানিয়েছেন।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

গভর্নিং বোর্ডের সঙ্গে এক বৈঠকের পর তিনি বলেন,‘টাটা গ্রুপ আইপিএলের নতুন টাইটেল স্পন্সর হিসেবে আসছে। ভিভোর সঙ্গে আইপিএলের আরও কিছু দিন চুক্তি ছিল। তবে বাকি সময়ের জন্য টাটা টাইটেল স্পন্সরশিপের দায়িত্বে থাকছে।

জানা গেছে, চীনা কোম্পানিটির তরফেই স্পন্সরশিপ থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা জানানো হয়েছিল। আর তারপরই আইপিএল কর্তৃপক্ষ টাটার হাতে দায়িত্ব তুলে দেয়। শোনা যাচ্ছে, আসন্ন টুর্নামেন্টের নাম হতে যাচ্ছে,‘টাটা ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ!’

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

ভারত-চীন বৈরিতার প্রভাব অন্য অনেক ক্ষেত্রের মতো ক্রীড়াঙ্গনেও পড়েছে। বিশেষ করে ২০২০ সালে লাদাখ সীমান্তে চীনা সেনাদের হাতে ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার পর থেকেই ভারতজুড়ে চীন বিদ্বেষ প্রকট আকার ধারণ করেছে। আর অনেকেই তখন আওয়াজ তুলেছিল, আইপিএলের স্পন্সরশিপের দায়িত্ব চীনা কোম্পানির কাছ থেকে সরিয়ে নিতে। তবে সরিয়ে দেওয়ার আগে এবার নিজেরাই সরে দাঁড়াল।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

এদিকে, বদলে যেতে পারে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) আয়োজনের দিনক্ষণ। ভারতে করোনার নতুন ঢেউ শুরু হওয়ার কারণে বড় ধরনের পরিবর্তনের পথে হাঁটতে পারে টুর্নামেন্ট কর্তৃপক্ষ।
ভারতে এখন করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের আছর। দেশটির নাগরিকরা একের পর এক এই মহামারি ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। সেটা বিবেচনায় নিয়েই কর্তৃপক্ষ টুর্নামেন্ট আয়োজনের দিনক্ষণে পরিবর্তন আনতে পারে বলে জানা যাচ্ছে।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

আগে থেকেই নির্ধারিত, এ বছরের ২ এপ্রিল বসবে প্রতিযোগিতাটির ১৫তম আসর। কিন্তু এখন সেই চিন্তা থেকে সরে যাওয়ার কথা ভাবছে ভারত ক্রিকেট বোর্ড। ২০২০ সালে করোনার কারণে দুবাইয়ে হয়েছিল আইপিএল। গেল বছর শুরুটা ভারতে হলেও মাঝপথে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বন্ধ করে ফের শুরু করতে হয় দুবাইয়ে। এবার করোনার দাপট কম ছিল বলে ভারতেই আইপিএল আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তার আগে ফেব্রুয়ারির ১২ ও ১৩ তারিখকে নিলামের জন্য নির্দিষ্ট করা হয়।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

এবারের আসরের নিলামে রেকর্ড দাম পেতে পারেন পেসার কিংবা অলরাউন্ডারদের মধ্যে কেউ। কেননা আইপিএলের নিলামে গত দুটি আসরে পেসার এবং অলরাউন্ডাররা দাপট দেখিয়েছেন। ২০১৯ সালের আসরে সবচেয়ে বেশি দামি ক্রিকেটার হয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার পেসার প্যাট কামিন্স। তাকে ১৫.৫ কোটি টাকায় দলে নিয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। সবশেষ আসরে বেশি দামে বিক্রি হয়েছেন অলরাউন্ডার ক্রিস মরিস, ১৬.২৫ কোটি টাকা। একই আসরে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দাম হয়েছিল নিউজিল্যান্ডের পেসার কাইলে জেমিসনের।

jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn
jwppfOn

গত দুটি আইপিএলের নিলাম অনুযায়ী বলা যায় এবার সবচেয়ে বেশি দাম পেলে পেতেও পারেন হার্শাল প্যাটেল। গত আসরে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর হয়ে ১৫ ম্যাচে টুর্নামেন্ট সর্বোচ্চ ৩২ উইকেট নিয়েছিলেন এই পেসার। নিলামের আগে টুর্নামেন্ট কর্তৃপক্ষ তিন জন করে দেশি খেলোয়াড় ধরে রাখার সুযোগ দিলেও বেঙ্গালুরু তাকে ছেড়ে দিয়েছে। ফলে অন্য কোনো দল তাকে পেতে আগ্রহী হতেও পারে। দুই বা ততোধিক দল আগ্রহ দেখালে নিলামে ক্রমশ দাম বাড়তেই পারে তার।

You May Also Like