বিশ্রামের দিনও একা অনুশীলনে সাকিব

আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল রোববার কোনো অনুশীলন নেই বাংলাদেশ জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের। খেলোয়াড়রা তাই বিশ্রামেই ছিলেন টিম হোটেলে। কিন্তু সেখানে ব্যাতিক্রম ছিলেন সাকিব আল হাসান। একাই অনুশীলন করলেন সাগরিকায়।

অবশ্য কুঁচকির ইনজুরি কাটিয়ে আগের দিনই (শনিবার) প্রথম অনুশীলনে যোগ দিয়েছিলেন সাকিব। তবে পূর্ণোদ্দমে অনুশীলনটা করতে পারেননি তিনি। কেবল ব্যাটিংই করেছেন। আর সেখানেও কিছুটা ‘অস্বস্তি’ বোধ করেছিলেন। স্বস্তি ফিরে পেতেই হয়তো এদিন ব্যক্তিগত অনুশীলনে যোগ দিলেন এ অলরাউন্ডার।

এদিন চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সকালে হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো ও ব্যাটিং কোচ জন লুইসের সঙ্গে নিয়ে অনুশীলনে যান সাকিব। প্রথমে করলেন ব্যাটিং অনুশীলন। নেট বোলারদের সঙ্গে বল থ্রো করলেন কোচ ডমিঙ্গোও। আগের দিনের চেয়ে বেশ সাবলীলভাবেই ব্যাট করতে দেখা গেল তাকে।

বেশ কিছুক্ষণ ব্যাটিং অনুশীলন শেষে বোলিং অনুশীলনও করেন সাকিব। তবে মজার ব্যাপার সাকিব যখন বোলিং করেন তখন ব্যাটিং করেছেন স্বয়ং কোচ ডমিঙ্গো। আর কোচকে বেশ কয়েকবারই পরাস্ত করলেন এ অলরাউন্ডার।

এর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে ম্যাচে কুঁচকিতে টান লেগেছিল সাকিবের। ক্যারিবিয়ানদের ইনিংসের ৩০তম ওভারের ঘটনা। নিজের চতুর্থ বল করার পর পঞ্চম বলটি করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন সাকিব। বড় পদক্ষেপ নেওয়ার সময় কুঁচকিতে টান অনুভব করেন। সঙ্গে সঙ্গেই পা চেপে ধরে মুখ বিকৃত করে ফেলেন।

তবে এরপরও বলটি করেছিলেন। কিন্তু পরে আর পেরে ওঠেননি। ফিজিও মাঠে আসার পর প্রাথমিক চিকিৎসা নিলেও মাঠে থাকা সম্ভব হয়নি তার। এ সময় ফিজিওর কথায় দৌড়ানোর সময় অস্বস্তি অনুভব করেন তিনি। এরপর ফিজিওর সঙ্গে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে মাঠ ছাড়েন।

পরে সাকিবকে ২৪ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। তবে ব্যথা না কমায় আরও ৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। এর মধ্যে স্ক্যানও করা হয়। সেখানে ফল ভালো আসায় আগের দিন অনুশীলনে ফেরেন সাকিব। নিজেকে শতভাগ প্রস্তুত করতে এদিন বিশ্রামের দিনেও ঘরে বসে থাকেননি এ অলরাউন্ডার।

তবে সাগরিকায় কেবল সাকিব একাই মাঠে গিয়েছেন তা নয়। পেসার তাসকিন আহমেদও গিয়েছিলেন। তবে তিনি বোলিং ব্যাটিং কিছুই করেননি। কেবল ফিজিও জুলিয়ান ক্যালেফাতোর সঙ্গে কিছুক্ষণ স্ট্রেচিং করে ফিরে আসেন এ পেসার।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment