স্ত্রী’র ওপর রাগ করে ৪৮ বছর বনবাসে!

স্ত্রী’র ওপর রাগ করে ৪৮ বছর বনবাসে!- ৭১ বছরের বৃদ্ধ কেন্নাচাপ্পা গৌড়া ঘর ছেড়েছিলেন ১৯৬৮ সালে। এরপর হতে একা একাকি প্রায় ১৩০ কিলোমিটার দূরে সুলিয়া এলাকার মা’রগাঞ্জ অভ’য়ারণ্যে বাস করছেন তিনি।

স্ত্রী’র ওপর রাগ করে ৪৮ বছর ধরে বনে বাস করছেন জনৈক ব্যাক্তি। এমন একটি ঘটনা ঘটেছে ভা’রতের তামিলনাড়ু রাজ্যে। তামিলনাড়ু রাজ্যের ৭১ বছরের বৃদ্ধ কেন্নাচাপ্পা গৌড়া ঘর ছেড়েছিলেন ১৯৬৮ সালে। এরপর হতে একা একাকি প্রায় ১৩০ কিলোমিটার দূরে সুলিয়া এলাকার মা’রগাঞ্জ অভ’য়ারণ্যে বাস করছেন তিনি

সম্প্রতি ভা’রতের একটি টেলিভিশন চ্যানেলের অনুসন্ধানে উঠে আসে ওই ব্যক্তির বনবাস জীবন কাহিনী। এরপর তাকে নিয়ে সংবাদ মাধ্যমের খবর প্রকাশ হতে থাকে। ভা’রতের সংবাদমাধ্যম জিনিউজ বলেছে, ২২ বছর বয়সে ১৯৬৭ সালে বিয়ে করেছিলেন কেন্নাচাপ্পা।

স্ত্রী’ উমা ছিলেন অ’তি রাগী প্রকৃতির। একদিন কথা কা’টাকাটির কারণে স্ত্রী’ পরিবারের সদস্যদের সামনে গায়ে হাত তোলেন। সেদিন রাগে-ক্ষোভে কেন্নাচাপ্পা বনবাসী হন। বাড়ি ছাড়ার সময় তিনি প্রতিজ্ঞা করেন, যতোদিন পর্যন্ত উমা মা’রা না যাবেন ততোদিন তিনি বাড়ি ফিরবেন না। এরপর হতে বনে বনেই কাটছে ৭১ বছর বয়েসী এই বৃদ্ধের। জিনিউজের অনুসন্ধানে জানা গেছে, যে নারীর জন্য ঘর ছেড়েছেন কেন্নাচাপ্পা সেই নারী তার স্ত্রী’ এখনও জীবিত। কয়েক বছর আগে স্বামীর সন্ধান পেয়েছিলেন তিনি।

তবে জানার পরও স্বামীকে ফিরিয়ে আনতে যাননি এবং তার একমাত্র ছে’লেকেও বাবার কাছে যেতে দেননি উমা।টিভি চ্যানেল ইন্ডিয়া টাইমসকে কেন্নাচাপ্পা গৌড়া জানান, নারকেল পাতা দিয়ে বানানো একটি ছোট্ট ঘরে বসবাস করেন তিনি। জঙ্গলে কৃষিকাজ করে উৎপন্ন আলু দিয়ে বানানো খাবার খেয়েই কাটে তার জীবন। এভাবেই এতোটি বছর বেঁচে রয়েছেন কেন্নাচাপ্পা!

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment