আফগানিস্তানের ক্রিকেটকে নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত নিল আইসিসি

751

তালেবান ক্ষমতায় আসার পর আফগানিস্তানের ক্রিকেট পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি একটি মনিটরিং টিম গঠন করেছে এবং সেই আলোকে দেশের ক্রিকেটকে এগিয়ে নিতে কী কী পদক্ষেপ নেওয়া দরকার।

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

ইমরান খাজার নেতৃত্বে আইসিসির এই নিরপেক্ষ পর্যবেক্ষক দলে রয়েছেন রস ম্যাককুলাম, লসন নাইডু এবং পিসিবির চেয়ারম্যান রমিজ রাজা। এই কমিটি আফগানিস্তানে গিয়ে দেশটির ক্রিকেট পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের পর আগামী মাসে আইসিসি বোর্ডের সামনে তাদের রিপোর্ট পেশ করবেন।

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

আইসিসি চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলে এক বিবৃতিতে এই পর্যবেক্ষক দল গঠন সম্পর্কে বলেন, ‘আইসিসি বোর্ড সব সময়ই আফগানিস্তান ক্রিকেটকে সহযোগিতা করতে বদ্ধ পরিকর। বিশেষ করে দেশটির পুরুষ এবং নারী ক্রিকেটের উন্নয়নে আইসিসি সব সময় কাজ করে যাচ্ছে। সমর্থন ও সহযোগিতা করে যাচ্ছে।’তিনি আরও বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি, আরও কার্যকর কোনো পদ্ধতিতে আমাদের সদস্য দেশটিকে সহযোগিতা করতে। যাতে তারা নতুন সরকারের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক রেখে, তাদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে।’

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

আইসিসি চেয়ারম্যান বলেন, ‘সৌভাগ্যক্রমে আফগানিস্তানে ক্রিকেট এমন একটি অবস্থায় রয়েছে যে, খেলাটি ইতিবাচক পরিবর্তনে ভূমিকা রাখতে পারছে। আফগানিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দল পুরো দেশের গর্ব এবং ঐক্যের প্রতীক হিসেবে দাঁড়িয়েছে। একই সঙ্গে এই খেলাটির সঙ্গে তরুণ প্রজন্মের ব্যাপক সংযোগের কারণে ইতিবাচক পরিবর্তনটা হচ্ছে অনেক বেশি।

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

আমরা চাই, আফগানদের মর্যাদা (টেস্ট এবং ওয়ানডে খেলার) রক্ষা হোক। একই সঙ্গে চেষ্টা করছি এসিবি’র (আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড) মাধ্যমে এ কাজটা করে যেতে এবং খুব কাছ থেকে দেশটির ক্রিকেটকে পর্যবেক্ষণ করতে ও সে অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নিতে।’

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

তালেবানরা ক্ষমতা দখল করার পর আফগানিস্তানের ক্রিকেট একটা অনিশ্চিত অবস্থার মধ্যে পড়ে গিয়েছিল। কিন্তু পরে জানা যায়, তালিবানরা বরং ক্রিকেট পছন্দ করে এবং তারা দ্রুত ক্রিকেটারদের মাঠে ফেরার সুযোগ করে দেয়। কারণ, ওই ঘটনার কিছুদিন পরই ছিল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তালিবানরা চেয়েছিল, তাদের ক্রিকেট দল যেন নির্বিঘ্নে ক্রিকেট বিশ্বকাপ খেলে আসতে পারে।

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

যদিও তালেবানরা আফগানিস্তানে নারীদের খেলাধুলার রাস্তা এখন পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে। ভবিষ্যতে নারীদের খেলাধুলা যে বন্ধ থাকবে, সেটাও প্রায় নিশ্চিত। এমন পরিস্থিতিতে আফগানিস্তানের বিক্ষে টেস্ট সিরিজ বাতিল করে দিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। তারা বলেছিল, নারী ক্রিকেট যেখানে নিষিদ্ধ সেখানে তারা পুরুষ ক্রিকেট দলের সঙ্গে টেস্ট খেলবে না। চলতি নভেম্বরেই সেই সিরিজটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

এরই মধ্যে আফগানিস্তান ক্রিকেটের নতুন খবর হলো, গত সপ্তাহেই ৩৩ বছর বয়সী মিরওয়াইজ আশরাফকে আফগান ক্রিকেট বোর্ডের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে তালিবানরা। গত আগস্টে ক্ষমতা দখলের পর আজিজুল্লাহ ফজলিকে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দিয়েছিল তারা। তার আগে ছিলেন ফারহান ইউসুফজাই। তালিবানদের ক্ষমতা দখলের সময় তিনি দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান।

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

আইসিসির অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নির্বাহী জিওফ অ্যালার্ডিচ মিডিয়ার সঙ্গে আলাপ করতে গিয়ে বলেন, ‘আফগানিস্তান হচ্ছে আমাদের সদস্য দেশ। তারা এই মুহূর্তে কিছু পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। আমরা শুধু তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে যাচ্ছি। চেষ্টা করছি, ক্রিকেট যেন সুন্দরভাবে চলে এবং দেশটির ক্রিকেট বোর্ড যেন তাদের সংবিধান অনুসারে সঠিকভাবে পরিচালিত হয়।’

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

‘দ্বিতীয় বিষয় হচ্ছে, তাদের ক্রিকেট চলছে। আমরা চেষ্টা করছি তাদেরকে সমর্থন জানিয়ে যেতে, যাতে তারা সঠিকভাবে পারফর্ম করতে পারে। আপানারা দেখবেন তাদের খেলোয়াড়দের এখন বিভিন্ন ইভেন্টসে অংশ নিতে। আমাদের বোর্ড আগামী সপ্তাহে তাদের সঙ্গে বৈঠক করবে।

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

সে বৈঠকের আলোকে অনেক কিছুই উঠে আসবে এবং তারা দেশটির ক্রিকেটের পরিস্থিতির ওপর আলোকপাত করবে। যে কমিটি তৈরি করে দেয়া হয়েছে, তাদের রিপোর্ট দেখার পর সম্পূর্ণ বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে যাবে এবং দেশটির নতুন সরকারের সঙ্গে কিভাবে সমন্বয় হয়ে কাজ করবে, সে ব্যাপারেও দিক নির্দেশনা উঠে আসবে সেই রিপোর্টে।’

GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht
GLeZpht

তালিবানরা ক্ষমতায় আসার পর তো নারী ক্রিকেট নিষিদ্ধই হয়ে গেছে। এ পরিস্থিতিতে আইসিসির কী করার আছে? জানতে চাইলে অ্যালার্ডিচ বলেন, ‘আমাদের মূল উদ্দেশ্য হলো, দেশটিতে পুরুষদের পাশাপাশি নারীরাও ক্রিকেট খেলুক। আমাদের চিন্তা হচ্ছে, এ লক্ষ্য অর্জন করতে হলে আমাদেরকে দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে খুব কাছাকাছি গিয়ে কাজ করতে হবে এবং তাদেরকে বোঝাতে হবে।’

You May Also Like