আইপিএলে নতুন ২ ফ্র্যাঞ্চাইজির নাম ঘোষণা করল ভারতীয় বোর্ড

আগেই ঠিক হয়েছিল সোমবার বড়সড় ঘোষণা করবে ভারতীয় বোর্ড। সেই সূচি মেনেই জানিয়ে দেওয়া হল আইপিএলে নয়া দুই ফ্র্যাঞ্চাইজির নাম। বিশাল অংকের অর্থের বিনিময়ে আইপিএলে ফ্র্যাঞ্চাইজি কিনলেন আরপি সঞ্জীব গোয়েঙ্কা এবং সিভিসি গ্রুপ। ৭০৯০ কোটি টাকার বিনিময়ে সঞ্জীব গোয়েঙ্কা গ্রুপ ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকানা পেল। ৫৬২৫ কোটি টাকার বিনিময়ে শেয়ার সংস্থা সিভিসি ক্যাপিটাল পার্টনার (ইরেলিয়া কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেড) কিনল আহমেদাবাদ ফ্র্যাঞ্চাইজি।

নিলাম যুদ্ধে বিশাল টাকার বিনিময়ে লখনৌ ফ্র্যাঞ্চাইজি কিনে সঞ্জীব গোয়েঙ্কা জানিয়ে দিলেন, “আইপিএলে ফিরতে পেরে ভাল লাগছে। দল কেনার পরে ভাল দল গঠন করার দিকে নজর দিতে হবে।” ফ্র্যাঞ্চাইজি কেনার জন্য বোর্ডের বেস প্রাইস ছিল ২০০০ কোটি টাকা (২৭০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার)। তবে পরে দেখা যায়, বেস প্রাইসের থেকেও ২৫০ শতাংশ বেশি দর দিয়েছেন সঞ্জীব গোয়েঙ্কা।

আইপিএলে দল কেনার জন্য দরপত্র সংগ্রহ করেছিল ২২টি সংস্থা। তবে দুবাইয়ে ওয়াক-ইন বিড ইভেন্টে হাজির ছিল মাত্র ৯ সংস্থার প্রতিনিধি। সোমবার ছয় ঘন্টা সেই ইভেন্ট চলার পরে সরকারিভাবে জানিয়ে দেওয়া হল দুই নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি এবং তাঁদের মালিকের নাম।

মূল নিলাম পর্ব শুরুর আগে বোর্ডের তরফে বিডিংয়ে অংশগ্রহণ করা সমস্ত সংস্থার বিষয়ে খতিয়ে দেখা হয়। তারপরেই মুখবন্ধ খামে রাখা দরপত্র খোলা হয়। নিলাম পর্বে আইপিএলের গভর্নিং কাউন্সিল ছাড়াও হাজির ছিলেন বোর্ডের তাবড় তাবড় কর্তা- প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, সচিব জয় শাহ, ভাইস প্রেসিডেন্ট রাজীব শুক্লা, কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমল, সহ সচিব জয়েশ জর্জরা।

ফ্র্যাঞ্চাইজি কেনা দুই সংস্থাকেই আপাতত ১০ বছরের মেয়াদ পর্বের পুরো অর্থ মিটিয়ে দিতে হবে। এই বিষয় আগেভাগে নিশ্চিত করতে বোর্ডের তরফে নিলামে অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছুকদের ক্ষেত্রে কড়াকড়ি নিয়ম করা হয়েছিল- আবেদনকারীদের গত তিন বছরের বার্ষিক টার্নওভার ন্যূনতম ৩০০০ কোটি টাকা থাকতেই হবে।

আইপিএলে দল কেনার দৌড়ে সঞ্জীব গোয়েঙ্কার সংস্থা ছাড়াও ছিল একাধিক নামি দামি কোম্পানি- ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের মালিক গ্লেজার পরিবার, আদানি গ্রুপ, টরেন্ট ফার্মা, কাপরি গ্লোবাল, অরবিন্দ ফার্মার মত সংস্থা। নামি দামি সংস্থাকে পিছনে ফেলে বাজিমাত সঞ্জীব গোয়েঙ্কার।ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

সংশ্লিষ্ট খবর