বিপর্যস্ত আফ্রিকান ফুটবলের দিকে সাহায্যের হাত বাড়াচ্ছে ফিফা

করোনার কারণে বড় ধরণের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছে আফ্রিকা মহাদেশের ফুটবল। ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে বড় ভূমিকা রাখবে আফ্রিকান নেশন্স চ্যাম্পিয়নশিপ। এমনটাই জানান ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফ্যান্তিনো। আফ্রিকার দেশগুলোর আর্থিক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে বিশেষ বরাদ্দ দিচ্ছে ফিফা। এ অর্থ পর্যাপ্ত না হলেও, ঘুরে দাঁড়াতে সাহায্য করবে তাদের। আফ্রিকার ফুটবলকে এগিয়ে নিতে ফিফা সব সময় পাশে থাকবে বলেও জানিয়েছেন ইনফ্যান্তিনো।

আফ্রিকা মহাদেশে এখন ফুটবলের উৎসব। হয়েছে অপেক্ষার অবসান। গেল বছর এপ্রিলে হওয়ার কথা ছিলো আফ্রিকান নেশন্স চ্যাম্পিয়নশিপ। কিন্তু করোনার কারণে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত আফ্রিকায় বন্ধ হয়ে যায় খেলা।
প্রথমবারের মত আফ্রিকান নেশন্স চ্যাম্পিয়নশিপ দিয়ে কাটলো খরা। কারণ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এই প্রথম এত দীর্ঘ সময় পর্যন্ত একসঙ্গে পুরো পৃথিবীজুড়ে বন্ধ ছিলো খেলাধুলা। চমৎকার এই ক্ষণের সাক্ষী হতে ছুটে যান ফিফা সভাপতি ইনফ্যান্তিনো।

করোনায় অন্যান্য অঞ্চলের মত মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়েছে আফ্রিকার ক্রীড়াঙ্গণও। এ আসর কিছুটা হলেও ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করবে বলে মনে করেন ইনফ্যান্তিনো।
ফিফা সভাপতি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে যেভাবে আসরটা শুরু হয়েছে, তা সত্যিই প্রশংসনীয়। ক্যামেরুন এত সমস্যার মাঝেও এভাবে আয়োজন করবে তা আমরা ভাবতেও পারিনি। এমন আয়োজন করোনার ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে কিছুটা হলেও সাহায্য করবে।
করোনার ক্ষতি কাটিয়ে সদস্য দেশগুলোকে ঘুরে দাঁড়াতে ১ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার সাহায্য দিবে ফিফা। আফ্রিকার দেশগুলোতে এ সাহায্য অব্যাহত রাখা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।
ইনফ্যান্তিনো বলেন, অন্যান্য দেশের মত আফ্রিকাতেও করোনার কারণে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এখান থেকে আগের অবস্থায় ফিরতে প্রয়োজন প্রচুর অর্থের। বিষয়টা আমরাও অনুধাবন করতে পারছি। এ জন্যই নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ তাদেরকে দেয়া হবে। যাতে করে তারা এ বিপর্যয় মোকাবিলা করতে পারে।
শুরুতে এ আসরের আয়োজক ছিলো ইথিওপিয়া। কিন্তু করোনায় বেশ ক্ষতি হওয়ায় তারা প্রস্তুতি শেষ করতে পারেনি। তাই পরে ক্যামেরুনকে আয়োজক করা হয়। প্রথম দিনেই জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে জয় পেয়েছে আফ্রিকার অদম্য সিংহ হিসেবে পরিচিত দেশটি।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment