প্রথম পর্বে দ্বিতীয় হলেও যার যার সাতে লড়তে হবে বাংলাদেশকে

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম পর্বে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বা গ্রুপ রানারআপ যা-ই হোক না কেন, বাংলাদেশ সরাসরি চলে যাবে গ্রুপ-২ তেই। যেখানে আছে ভারত-পাকিস্তানের মতো শক্তিশালী দল।

আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ আট দল সরাসরি জায়গা করে নেয় সুপার ১২ এ। তখনকার র‍্যাঙ্কিংয়ে ৯ নম্বরে ছিল শ্রীলঙ্কা এবং ও ১০ নম্বরে ছিল বাংলাদেশ।

অর্থাৎ নিয়ম অনুযায়ী শ্রীলংকা ও বাংলাদেশ প্রথম রাউন্ড খেলে উঠবে। যেখানে পৃথক গ্রুপে তাদের প্রতিপক্ষ হবে বাছাইপর্ব পার করে আসা আরও ছয়টি দল।

বাংলাদেশ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বা রানার আপ যেভাবেই উঠুক, তাদের সিড হবে বি১। এর মানে বাংলাদেশ ভারত এবং পাকিস্তানের গ্রুপ-২ তেই পড়বে। একইভাবে যদি শ্রীলংকাও প্রথম রাউন্ড পার করে, তাহলে তাদের সিড হবে এ১। অর্থাৎ, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের গ্রুপ-১ এ পড়বে তারা।

ইতোমধ্যেই স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। এরপর ওমান এবং পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে জিতলে সুপার-১২ নিশ্চিত করতে পারে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

তবে এই যাত্রা সহজ নয় বাংলাদেশের জন্য। কেননা একই গ্রুপে একাধিক দল দুটো ম্যাচ জিতলে নেট রান রেটের হিসেব করবে আইসিসি। আর তাই সুপার-১২ তে উঠতে হলে ম্যাচ জয়ের পাশাপাশি নেট রান রেটকেও গুরুত্ব দিতে হবে লাল-সবুজের দলকে।

You May Also Like

About the Author: