টাইগারদের ব্যাটিং পাওয়ার হিটিং নিয়ে বেরিয়ে এলো সত্য ঘটনা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের কাছে লজ্জাজনক পরাজয় দেখলো বাংলাদেশ। ফলে মূল পর্বে উঠতে ওমান ও পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের বাকি ২টু ম্যাচ জিততেই হবে টাইগারদের।

রোববার টস জিতে ব্যাট করতে নেমে প্রথমে ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৪০ রানের সম্মানজনক স্কোর করে বাংলাদেশের সামনে ১৪১ রানের টার্গেট দেয় কাইল কোয়েটজারের স্কটল্যান্ড। শুরুতেই স্কটিশ অধিনায়ক কোয়েটজার শূন্য রানেই ফিরে যান সাইফুদ্দিনের ইয়র্কারে বোল্ড হয়ে। তারপর থেকেই অপর ওপেনার জর্জ মান্সিকে সাথে নিয়ে রান বাড়ানোর চেষ্টা চালিয়ে যান ম্যাথু ক্রস। কিন্তু মেহেদি হাসান বোলিংয়ে এসেই এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন ক্রসকে। দুই বল পর জর্জ মান্সিকে পরিষ্কার বোল্ড করে ফেরান মেহেদি হাসান।

তারপর একই ওভারে রিচি বেরিংটন ও মাইকেল লিস্ককে ফিরিয়ে দেন সাকিব আল হাসান। পরের ওভারেই ক্যালাম ম্যাকলয়েড, মেহেদি হাসানের বলে বোল্ড হলে ২০ ওভারের আগেই অলআউট হবার শঙ্কায় পড়ে স্কটিশরা। মেহেদি হাসান, সাকিব আল হাসানের তোপের মুখে মাত্র ৫৩ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলা স্কটল্যান্ড ম্যাচে ফেরে ক্রিস গ্রিভস ও মার্ক ওয়াটের ব্যাটিং দৃঢ়তায়। এই দু’জন গড়েন ৫১ রানের জুটি। গ্রিভসের ২৮ বলে ৪৫ রানের লড়াকু ইনিংস থামে মোস্তাফিজের বলে সাকিবের হাতে ক্যাচ দিয়ে।

বাংলাদেশের পক্ষে মেহেদি হাসান নেন ১৯ রানে ৩ উইকেট। এছাড়া সাকিব ও মোস্তাফিজ নেন দুটি করে উইকেট।

স্কটল্যান্ডের দেয়া ১৪১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বাংলাদেশের দুই ওপেনার সৌম্য সরকার ও লিটন দাস ফিরে যাওয়ার পর সাকিব-মুশফিকের ৪৭ রানের জুটিতে জয়ের স্বপ্ন উজ্জ্বল হচ্ছিল বাংলাদেশের। তবে সাকিব ২০ ও মুশফিক ৩৮ রানে সাজঘরে ফিরে গেলে আবারও চাপে পড়ে বাংলাদেশ।

এরপর মাহমুদউল্লাহ ধীরগতিতে ২৩ ও আফিফ ১৮ রান করলেও তা স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভার খেলে ১৩৪ রান করতে সমর্থ হয় বাংলাদেশ। শেষ ৩ বলে ১৮ রানের রীতিমতো অসম্ভব সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে মেহেদির এক ছয় ও চার শুধু আফসোসই বাড়িয়েছে।

স্কটল্যান্ডের হয়ে দুর্দান্ত বল করেন ব্র্যাডলি হোয়েল। ৪ ওভার বল করে ২৪ রানে ৩টি উইকেট নেন তিনি। এছাড়া ক্রিস গ্রেভস নেন ২ উইকেট।

You May Also Like

About the Author: