টানা ২২ ম্যাচ অপরাজিত আর্জেন্টিনা

ইতালির ঐতিহাসিক–যাত্রা থেমেছে। টানা ৩৭ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর কাল রাতে নেশনস লিগের সেমিফাইনালে স্পেনের কাছে ২–১ গোলে হেরেছে ইতালি। এদিকে আগামীকাল আসুনসিওনে বাংলাদেশ সময় ভোর ৫টায় ২০২২ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে স্বাগতিক প্যারাগুয়ের মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা।

একদিকে ইউরোর শিরোপাধারীদের অপরাজেয় যাত্রা থেমেছে। ওদিকে লিওনেল স্কালোনির আর্জেন্টিনাও মহাদেশীয় শিরোপাধারী। আর আর্জেন্টিনার ম্যাচ যেহেতু আছে, তাই প্রশ্ন উঠতে পারে—আর্জেন্টিনা শেষ কবে হেরেছে? স্কালোনির অধীনে এ আর্জেন্টিনা সব সময় অসাধারণ না খেললেও তাদের হার স্মৃতি হাতড়ে খুঁজে বের করা কঠিন। ২০১৮ সালের আগস্টে আর্জেন্টিনা দলের কোচের দায়িত্ব নেন স্কালোনি।

পরের বছর কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে ব্রাজিলের বিপক্ষে ২–০ গোলে হারে আর্জেন্টিনা। তারপর থেকে এ পর্যন্ত টানা ২২ ম্যাচ অপরাজিত স্কালোনির আর্জেন্টিনা। দলটির ইতিহাসে এত লম্বা সময় অপরাজিত থাকার রেকর্ড অবশ্য আর্জেন্টিনার জন্য নতুন কিছু না। মার্সেলো বিয়েলসার আর্জেন্টিনাও হার না দেখার এক কীর্তি গড়েছিল। তবে সে কীর্তিকে পেছনে ফেলেছেন স্কালোনি। ২০০০ থেকে ২০০২ সালের মধ্যে আর্জেন্টিনার কোচ হিসেবে টানা ১৮ ম্যাচ অপরাজিত ছিলেন বিয়েলসা।

তাহলে প্রশ্ন হলো, স্কালোনির সামনে এখন কে? এ প্রশ্নের জবাব দেওয়ার আগে দারুণ এক যোগসূত্র নিয়ে বলা যাক। আর্জেন্টিনা এ বছর কোপা আমেরিকা জেতার আগে আন্তর্জাতিক ময়দানে সর্বশেষ শিরোপা জিতেছিল ১৯৯৩ সালে। আলফিও বাসিলের অধীনে সেবার মহাদেশীয় শিরোপাধারী হয় গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা–ফার্নান্দো রেদেন্দোদের আর্জেন্টিনা। ২৮ বছর পর সে খরা কাটিয়েছেন স্কালোনি, কোপা আমেরিকা জিতেই। এই বাসিলের অধীনেই টানা অপরাজিত থাকার রেকর্ড গড়েছিল আর্জেন্টিনা।

১৯৯১–১৯৯৪ পর্যন্ত আর্জেন্টিনার কোচ ছিলেন বাসিলে। এর মধ্যে ১৯ ফেব্রুয়ারি ১৯৯১ থেকে ৮ আগস্ট ১৯৯৩—বাসিলের অধীনে টানা ৩৩ ম্যাচ অপরাজিত ছিল আর্জেন্টিনা। এই অপরাজিত–যাত্রায় দুবার কোপা আমেরিকা জিতেছে আর্জেন্টিনা। তাঁকে টপকে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন স্কালোনি। আর্জেন্টিনা দলের কোচ পদে ১১৬২ দিন দায়িত্বে থেকে এ পর্যন্ত ৩৬ ম্যাচে ২৩ জয়, ৯ ড্র ও ৪ ম্যাচ হেরেছেন স্কালোনি।
জাতীয় দলের অপরাজিত থাকার এই পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এএফএ)।

তবে এএফএর হিসাব অনুযায়ী বাসিলের সেই আর্জেন্টিনার অপরাজিত থাকার পরিসংখ্যান থেকে দুটি ম্যাচ বাদ দিয়েছে ফিফা। ১৯৯১ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর আর্জেন্টিনার বিপক্ষে দক্ষিণ আমেরিকার বাকি দলগুলো মিলে গঠন করা দল নিয়ে একটি ম্যাচ খেলেছিল। আর্জেন্টিনা ২–১ গোলে জিতেছিল। এরপর সে বছরের ২৯ অক্টোবর বিশ্ব একাদশের বিপক্ষে খেলা ম্যাচও ৩–০ গোলে জেতে আর্জেন্টিনা—এ দুটি ম্যাচ ফিফার পরিসংখ্যানে যোগ করা হয়নি

You May Also Like

About the Author: