মুম্বাই নাকি কলকাতা, প্লে-অফের হিসাব নিকাশে এগিয়ে যারা

মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের কাছে হেরে আইপিএল প্লে-অফে যাওয়ার আশা শেষ রাজস্থান রয়্যালসের। উল্টো দিকে ৮ উইকেটে জিতে প্লে-অফের দৌড়ে থাকল মুম্বই। প্লে-অফের আশা জিইয়ে রাখতে এই ম্যাচে বড় ব্যবধানে জিততে হত রোহিত শর্মাদের। আর সেটাই করে দেখাল গত দু’বারের চ্যাম্পিয়নরা। ৭০ বল বাকি থাকতেই জিতল তারা।

শারজার মাঠে টসে জিতে রাজস্থানকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠান রোহিত। শুরু থেকে কিছুটা চালিয়ে খেললেও নাথান কুল্টার-নাইলের বলে যশস্বী জয়সওয়াল আউট হতেই সমস্যায় পড়ে যায় রাজস্থান। শারজার মন্থর উইকেটে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেননি সঞ্জু স্যামসনরা। ২০ ওভারে মাত্র ৯০ রানে শেষ হয়ে যায় রাজস্থানের ইনিংস। এভিন লুইস ১৯ বলে ২৪ রান করে আউট হন। যশস্বী ৯ বলে ১২ রান করে সাজঘরে ফেরেন।

লুইস ফিরতেই পরপর উইকেট পড়তে থাকে রাজস্থানের। বলের গতি বুঝতে না পেরে মাত্র ৩ রান করে জিমি নিসামের বলে আউট হন সঞ্জু। ৩ রান করে ফেরেন শিভম দুবেও। গ্লেন ফিলিপস আউট হন ৪ রান করে। ডেভিড মিলার ও রাহুল তেওয়াটিয়া কিছুটা চেষ্টা করলেও দলকে সম্মানজনক জায়গায় নিয়ে যেতে পারেননি। মিলার ১৫ রান করে আউট হন আর রাহুল আউট হন ১২ করে। রান পাননি শ্রেয়স গোপাল। ০ রানে ফেরেন তিনি।

মাত্র ১৪ রান দিয়ে চার উইকেট নেন কুল্টার-নাইল। ৪ ওভার বল করে ১২ রান দিয়ে তিন উইকেট পান নিশাম। ভাল বল করেন যশপ্রীত বুমরাও। ৪ ওভারে ১৪ রান দিয়ে তিন উইকেট পান তিনি। ২ ওভার বল করে মাত্র ৯ রান দিলেও উইকেট পাননি কায়রন পোলার্ড। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দুই উইকেট হারিয়ে মাত্র ৬ ওভারেই ৫৬ রান করে ফেলে মুম্বই। ফের ব্যর্থ হন সূর্যকুমার যাদব। ৮ বলে ১৩ রান করে আউট হন তিনি। রোহিত ১৩ বলে ২২ রান করে আউট হন।

ছন্দে ফিরলেন ঈশান কিশন। মাত্র ২৫ বলে ৫০ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। অপর দিকে হার্দিক পাণ্ড্য ৬ বলে ৫ রান করে অপরাজিত থাকেন। বড় জয়ের জন্য এ বার কলকাতা নাইট রাইডার্সের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করল রোহিত শর্মার (Rohit Sharma) দল। কারণ ১৩ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে রয়েছে কেকেআর। সেখানে সমান ম্যাচ খেলে সোম সংখ্যক পয়েন্ট নিয়ে পাঁচ নম্বরে রয়েছে মুম্বই। তবে রানরেটের বিচারে এগিয়ে রয়েছে কলকাতা।

এই মুহূর্তে নাইটদের রানরেট ০.২৯৪। সেখানে মুম্বইয়ের রানরেট -০.০৪৮। ফলে কলকাতাকে প্লে অফ পাকা পক্ত ভাবে নিশ্চিত করতে হলে ৭ তারিখ রাজস্থান রয়েলসের সাথে বড় ব্যবধানে জয় লাভ করতে হবে। তাহলে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ৮ তারিখে সানরাইজ হায়দ্রাবাদের সাথে বড় ব্যবধানে জয় লাভ করলেও প্লেয়অফে যেতে পারবে না।

You May Also Like

About the Author: