ফুটপাতে ফুচকা বিক্রেতা থেকে যেভাবে হলেন কোটি টাকা দামের আইপিএলের তারকা ক্রিকেটার

আইপিএল অনেক আনকোরা ক্রিকেটারকেই খ্যাতির শীর্ষে পৌছে দিয়েছে। খুদে তারকা থেকে সুপার স্টারের রাস্তা অনেককেই দেখিয়েছে আইপিএল। তবে এই ক্রিকেটারের গল্প হয়তো একটু আলাদা।

সামান্য ফুচকা ওয়ালা থেকে তিনি আজ হয়ে উঠেছেন আইপিল তারকা। অনুর্ধ্ব ১৯ জাতীয় দলের হয়ে পৌছেছেন খ্যাতির শীর্ষে। জানুন তার জীবন সংগ্রামের কাহিনি। উত্তর প্রদেশের ভদোহী গ্রামে থাকতেন যশশ্বী জয়সওয়াল। সংসারে অভাবের কারণে মাত্র ১১ বছর বয়সে বাড়ি ছেড়েছিলেন তিনি। পারি দেন মুম্বইয়ের উদ্দেশ্যে।

বাণিজ্য নগরীতে পৌছে ফুচকা বিক্রি করে দিন গুজরান করতেন ছোট্ট যশস্বী। কিন্তু তখনও থাকার জন্য মাথার উপর ছিল না কোনও ছাদ। বেশিরভাগ রাত কাটত এক দুধের দোকানে বা ফুটপাথে। কখনও কখনও যেখানে মন চাইত সেখানেই কাটাত রাত।মুম্বইয়ের ফুটপাথও ছিল তার সঙ্গী।

ফুচকা বিক্রি করলেও, ক্রিকেটের প্রতি ছোট বেলা থেকেই অগাধ প্রেম ছিল তার। তাই প্রতিদিন বিকেলে আজাদ ময়দানে যেতেন ক্রিকেট খেলা দেখতে। সেখানে গিয়ে রোজই খেলতে নেওয়ার জন্য আবদার করতেন যশস্বী। দিনের পর দিন মুখ ছোট করে সেই গিয়ে খুলত হতে ফুচকার দোকান।

একদিন হঠাৎ মেলে সুযোগ। পাপ্পু স্যার নামে এক কোচ একদিন তাকে খেলার সুযোগ করে দিন। সঙ্গে প্রস্তাব দেন ভাল খেললে টেন্টে থাকার সুযোগ। সেই ম্যাচে ভাল ব্যাটও করেন যশস্বী। পুরস্কার সরূপ মিলে যায় ক্রিকেট খেলার ও টেন্টে থাকার সুযোগ।ফুচকা বিক্রি ও ক্রিকেট খেলা দুটোই চলছিল। একদিন আজাদ ময়দানে খুদে যশস্বীর ব্যাটিং দেখে ভাল লেগে যায় কোচ জ্বালা সিংহের। তিনিই এরপর যশস্বীর ক্রিকেটের সমস্ত দায়িত্ব নেন।

ক্রিকেট কিটস কিনে দেওয়া থেকে শুরু করে তালিম দেওয়া সবকিছুই করেন জ্বালা সিং। তারপর থেকেই যশস্বীর জীবনের গাড়ি স্পিড নেয়। পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি আর যশস্বীকে। কোচ জ্বালা সিংয়ের তত্ত্বাবধানে কঠোর পরিশ্রম করে নিজেকে আরও পরিণত করেন যশস্বী। তার ব্যাটিংয়ে মুগ্ধ ছিলেন কোচ জ্বালা সিংও।

তারপর একের পর এক স্থানীয় টুর্নামেন্টে নিজের জাত চেনাতে শুরু করেন যশস্বী জয়সওাল। মুম্বইয়ের হয়ে বয়সভিত্তিক ক্রিকেটে নজরকাড়া পারফরম্যান্স করেন তিনি। লিস্ট এ ম্যাচে ডবল সেঞ্চুরি করে শিরোনামে চলে আসেন এই তরুণ ক্রিকেটার।

ঘরোয়া ক্রিকেটে লাগাতার দুরন্ত পারফরমেন্সের সৌজন্যে অবশেষে সুযোগ আসে ভারতীয় অনুর্ধ্ব ১৯ দলে খেলার। নির্বাচিত হন অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের দলেও। যুব বিশ্বকাপে চারশোর ওপর রান করে সেরা ব্যাটসম্যানের স্বীকৃতি। আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি যশস্বীকে।

অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের সেরা ব্যাটসম্যান হওয়ার সৌজন্যে আইপিএল ২০২০-তে যশস্বীকে কেনে রাজস্থান রয়্যাল দল। তার ট্যালেন্টের উপর ভরসা ছিল রাজস্থান রয়্যালস দলের।

তাই দামের কথা ভাবেননি কর্তারা।মাত্র ২০ লক্ষ টাকার বেস প্রাইসের প্লেয়ারকে ২ কোটি ৪০ লক্ষ টাকায় কেনে রাজস্থান। তবো টাকা নয়, আইপিএলে বিশ্বের তাবড় তাবড় ক্রিকেটারদের সঙ্গে খেলা ও তাদের বিরুদ্ধে ভাল পারফর্ম করাই ছিল যশস্বীর স্বপ্ন।

২০২০ সালে কেরিয়ারের প্রথম আইপিএল খেলার জন্য রোমাঞ্চিত ছিলেনন যশস্বী জয়সওয়াল। কিন্তু প্রথম আইপিলে কয়েকটি ম্যাচে সুযোগ পেলেও খুব একটা দাগ কাটতে পারেননি তরুণ বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। তবে ২০২১ সালে বেশ কয়েকটি ম্যাচে ভালো পারফর্ম করে রাজস্থানের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান হয়ে উঠেছেন যশশ্বী।

সামনে অনেক পথ চলা বাকি এখনও যশস্বী জয়সওয়ালের। কিন্তু ফুচকা বিক্রেতা থেকে শুরু করে আইপিএলের মত মেগা মঞ্চে তারকা হয়ে ওঠা যশস্বীর জীবন যুদ্ধ অনেকের কাছেই প্রেরণা। আগামি দিনেও যশস্বীর সাফল্যের জন্য রইল শুভকামনা।

You May Also Like

About the Author: