সাকিব-মোস্তাফিজ নিয়ে যা বললেন অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ

সংযুক্ত আরব আমিরাতে উত্তেজনা ছড়িয়ে চলছে ভারতে থমকে যাওয়া আইপিএলের চতুর্দশ আসর। এবারের আসরেও খেলছেন দুই বাংলাদেশি ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ও মোস্তাফিজুর রহমান। মুস্তাফিজ রাজস্থানের একাদশে নিয়মিত সুযোগ পেলেও কলকাতার একাদশে টানা উপেক্ষিত সাকিব।

সাকিবের এ বিষয়টিকে ‘দুর্ভাগ্যজনক’ বলে আখ্যায়িত করেছেন জাতীয় দলের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার প্রতিটি ম্যাচেই একাদশে থাকার যোগ্য বলে মনে করেন তিনি। এবারের আইপিএলে কলকাতার প্রথম তিন ম্যাচে খেলেছিলেন সাকিব। এরপর একাদশ থেকে বাদ পড়লে কপাল খোলেনি এখনও।

কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিদেশি খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স সন্তোষজনক নয়। তবুও আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে কোনো ম্যাচ খেলা হয়নি সাকিবের। আইপিএলে ম্যাচ খেলার সুযোগ না পেলেও আমিরাতেই অনুষ্ঠিতব্য আসন্ন বিশ্বকাপের জন্য সাকিব নিজেকে ঠিকঠাকভাবেই প্রস্তুত করছেন বলেই বিশ্বাস রিয়াদের। টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক বলেন,

‘সাকিবের বিষয়টা দুর্ভাগ্যজনক। সব ম্যাচ খেলার মত যথেষ্ট সামর্থ্য তার আছে। তবে সাকিব খুব ভালোভাবেই জানে তার প্রস্তুতি কেমন হওয়া উচিৎ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য সাকিব মুখিয়ে আছে।’ এদিকে, বল হাতে আবারো স্বমহিমায় ফিরেছেন মোস্তাফিজুর রহমান। ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা সময় পার করছেন কাটার মাস্টার। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সের পর সংযুক্ত আরব আমিরাতে চলমান আইপিএলেও আলো ছড়াচ্ছেন মুস্তাফিজ।

ফর্মের তুঙ্গে থাকা এই পেসারকে তাই ‘দলের নেতা’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। রিয়াদ বলেন, ‘এই মুহূর্তে মোস্তাফিজ টি-টোয়েন্টির অন্যতম সেরা বোলার। র‍্যাংকিংও যদি দেখেন- ফাস্ট বোলারদের মধ্যে ও শীর্ষে আছে। আমাদের দলে সে গুরুত্বপূর্ণ একজন নেতা। সে সবাইকে তার অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান দিয়ে সহায়তা করে। বাকি পেসাররাও ভালো করছে।

তাসকিন, শরিফুল, সাইফউদ্দিন ভালো করছে; দলের সঙ্গে রুবেলও আছে।’ আইপিএলে ভালো করা মোস্তাফিজের প্রশংসা করে মাহমুদউল্লাহ আরো বলেন, ‘মোস্তাফিজ খুবই ভালো করছে। কয়েকটা ম্যাচ জেতানোর মত স্পেল করেছে। তারা দলের সাথে যোগ দিলে ঐ কন্ডিশনের অভিজ্ঞতা আমাদের জানাবে, যা আমাদের কাজে আসবে।’

টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক মনে করেন, বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের পেস বোলিং লাইনআপ সমৃদ্ধ, আত্মবিশ্বাসী ও ভারসাম্যপূর্ণ। তিনি বলেন, ‘গত কয়েক সিরিজ ধরে আমাদের বোলিং ইউনিট অসাধারণ। এই মুহূর্তে আমাদের বোলিং ইউনিট বেশ আত্মবিশ্বাসী, সমৃদ্ধ, ভারসাম্যপূর্ণ। তাই তাদের নিয়ে আমি আশাবাদী।’

অবশ্য এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ অংশ নেবে তারুণ্যনির্ভর এক স্কোয়াড নিয়ে। অভিজ্ঞতায় পিছিয়ে থাকলেও তরুণদের সামর্থ্য নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই রিয়াদের। তিনি বলেন, ‘ওদের জ্ঞান ভালো, বেশ দায়িত্বসম্পন্ন। ওদের প্রস্তুতি কেমন হওয়া উচিৎ বা কোন কোন জায়গা নিয়ে কাজ করা প্রয়োজন তা জানে। শামীম চট্টগ্রামে কিছু ম্যাচ খেলেছে। আফিফ, সোহানও ব্যক্তিগতভাবে কাজ করছে।’

এদিকে, সংযুক্ত আরব আমিরাতে চলমান আইপিএলের ভেন্যুগুলোই মূলত বিশ্বকাপেরও মূল ভেন্যু। আইপিএলের ম্যাচ খেলায় সাকিব-মুস্তাফিজ তাদের অভিজ্ঞতাগুলো তাই দলের অন্যদের সঙ্গেও ভাগাভাগি করতে পারবেন বলে খুশি রিয়াদ।

You May Also Like

About the Author: