সাদমান এবং সাইফ হাসানের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তৃতীয় দিন শেষে চালকের আসনে বাংলাদেশ

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট ম্যাচের তৃতীয় দিন শেষে সুবিধাজনক স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় দিনশেষে বিনা উইকেটে ৪৫ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। ২২ রান করে অপরাজিত রয়েছেন সাদমান ইসলাম এবং ২০ রান করে অপরাজিত রয়েছেন সাইফ হাসান। ২৩৭ রানের এগিয়ে থেকে আগামীকাল চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করবে বাংলাদেশ।

আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যানের হাত ধরে দিনের শুরুটা দুর্দান্ত ছিল জিম্বাবুয়ের। দ্বিতীয় উইকেট জুটি কাইতানো এবং টেলর মিলে তুলেন ১১৫ রান। সেই সঙ্গে উভয়ই ব্যক্তিগত অর্ধশতক পূর্ণ করেন। রান তুলতে ব্যস্ত হয়ে উঠা দলীয় অধিনায়ক টেলরকে আউট করে দিনের প্রথম উইকেট তুলে নেন টাইগার বোলিং অলরাউন্ডার মেহেদি মিরাজ।

ইনিংসে ৫৭তম ওভারে তার করা বলে ক্যাচ তুলে দেন টেলর। আউট হওয়ার পূর্বে করেন ৮১ রান। তৃতীয় উইকেট জুটিতে আপনতালে ব্যাট করতে থাকেন কাইতানো এবং মেয়ার্স। সাকিব আল হাসানে বলে মেহেদি মিরাজ হাতে ক্যাচ তুলে দেন প্যাভিলিয়নে ফিরে যান অভিষিক্ত মেয়ার্স। ব্যক্তিগত খাতায় সংগ্রহ করেন ২৭ রান।

দলীয় ২২৫ রানে ৩ উইকেট হারালেও তখন পর্যন্ত সুবিধাজনক অবস্থানেই ছিল স্বাগতিকরা। কিন্তু এরপর মেহেদি হাসান মিরাজ এবং সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণিতে রীতিমতো কাবু হয়ে যায় জিম্বাবুয়ের ব্যাটিং লাইনআপ। পড়তে থাকে একের পর এক উইকেট। চতুর্থ এবং পঞ্চম উইকেটে ব্যাট করতে নামা টেনসাই মারুমা এবং রয় কায়া ফিরেছেন শূন্যরানেই।

পরের উইকেট অবশ্য উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান রেভিস চাকাভাকে সঙ্গে নিয়ে আরো একবার প্রতিরোধের চেষ্টা চালান ওপেনার কাইতানো। কিন্তু বল হাতে আবারো দিশেহারা করে দেন জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যানদের। পরপর নিজের তিন ওভারে তিন উইকেট তুলে নিয়ে ইনিংসে নিজের পঞ্চম পূর্ণ করে মিরাজ। অন্যদিকে বাকি কাজটা করেন সাকিব।

অভিষিক্ত কাইতানো আউট হন ব্যক্তিগত ৮৭ রানে। ৩১১ বলে খেলা তার এই ইনিংসটি ৭টি চারে সাজানো। পরের চারজন ব্যাটসম্যানের মধ্যে ডোনাল্ট তিরিপানো এবং ব্লেসিং মুজারাবানি ২ রান করে করেন। আর রানের খাতায় খুলতে পারেননি ভিক্টর নুয়াচি এবং রিচার্ড এনগারাভা।

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ পাঁচটি উইকেট নেন মেহেদি হাসান মিরাজ। সাকিব আল হাসান নেন চারটি উইকেট। আর একটি উইকেট তাসকিনের।

এর আগে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে মাহমুদউল্লাহ অপ্রতিরোধ্য সেঞ্চুরি এবং মুমিনুল, লিটন এবং তাসকিনদের হাফসেঞ্চুরির উপর ভর করে সবকটি উইকেট হারিয়ে নিজেদের প্রথম ইনিংসে পাহাড় সমান ৪৬৮ রান সংগ্রহ করে সফররত বাংলাদেশ দল।

You May Also Like

About the Author: